• শনিবার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ১১ ১৪২৭

  • || ০৮ সফর ১৪৪২

১৪৬

নখের যেকোনো সমস্যার সমাধান মিলবে ঘরোয়া এই পদ্ধতিতে

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ১০ আগস্ট ২০২০  

হাতের সৌন্দর্য বাড়াতে নখের জুড়ি নেই। তাছাড়াও নখ নানা কাজে ব্যবহৃত হয়। অনেক সময় নখে ছোট-বড় নানা সমস্যা দেয়। যেমন- নখ বড় না হওয়া, হলুদ হয়ে যাওয়া বা ফাংগাস পড়া, ভেঙে যাওয়া ইত্যাদি।

এ ধরনের সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে অনেকেই বিভিন্ন পদ্ধতি অবলম্বন করেন। তবে তা সব সময় কাজে দেয় না। এক্ষেত্রে ঘরোয়া উপায়গুলো সবচেয়ে বেশি কার্যকরী। চলুন জেনে নেয়া যাক কীভাবে ঘরোয়া পদ্ধতিতেই মিলবে নখের যেকোনো সমস্যার সমাধান-

> অনেক সময়ই দেখা যায় পায়ের নখ বড় হয় না বা লাল হয়ে থাকে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নখের আশেপাশে ইনফেকশনও হতে পারে। এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে সবচেয়ে উপযোগী সমাধান হলো হালকা গরম পানিতে পা ডুবিয়ে রাখা। পানিতে সিকি চামচ এসিড সাইডার মেশালে উপকার পাওয়া যাবে।

> নখ উঠে যাওয়া যেমন কষ্টদায়ক তেমনি অস্বস্তিকরও। সেজন্য নখে টি ট্রি অয়েল বা এন্টিবায়োটিক সেবনে আরাম পাওয়া যাবে।

> নখের মাথা এবড়োখেবড়ো হয়ার পেছনে নানা কারণ থাকতে পারে। অন্যতম প্রধান কারণ হলো ফাংগাল ইনফেকশন। এপসম সল্ট বা হোয়াইট ভিনেগার পানির সঙ্গে মিশিয়ে আক্রান্ত জায়গায় দিলেও ভালো ফল পাওয়া যায়।

> পায়ের বুড়ো আংগুলে ফাংগাল ইনফেকশন অনেক সাধারণ একটি বিষয়। ইনফেকশন ছড়িয়ে গেলে পুরো নখ হলুদ হয়ে যায়। অনেক সময় সমস্যা গুরুতর হয়ে গেলে অপারেশনও করা লাগতে পারে। ফাংগাল ইনফেকশন থেকে মুক্তি পেতে গরম পানিতে পা ভিজিয়ে রাখুন। পানিতে প্রাকৃতিক তেল এবং লিস্টারিন মেশালে আরো তাড়াতাড়ি আরোগ্য পাওয়া যায়।

> খুব তাড়াতাড়ি নখ ভেঙে যাওয়া একটি খারাপ লক্ষণ। এমন সমস্যা দেখা দিলে নখে তেল বা আলাদা ক্রিম মাখলে উপকার পাওয়া যায়। তাছাড়া এ সমস্যা দেখা দিলে বাড়ির কাজ করার সময় গ্লাভস পরা উচিত।

> নখের নিচে কালো দাগ দেখা দিলে তাকে মেডিকেল টার্মে বলে “হেমাটোমা”। এরফলে কেবল রক্ত জমা থাকলেও যত দ্রুত সম্ভব এর চিকিৎসা করা উচিত। যে নখে এরকম সমস্যা দেখা যাবে সেখানে বরফ দিয়ে রাখতে হবে।

> নখ সরে যাওয়া বা হলুদ হয়ে যাওয়া যেকোনো ক্ষেত্রেই হালকা গরম পানিতে টি ট্রি অয়েল বা এসিড ভিনেগার মিশিয়ে আক্রান্ত নখে দিলে আরাম পাওয়া যায়।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা
স্বাস্থ্য বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর