মঙ্গলবার   ১৮ জুন ২০২৪ || ৩ আষাঢ় ১৪৩১

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ১৩:০৪, ১৮ মে ২০২৪

গোবিন্দগঞ্জে বেড়েছে ভুট্টার আবাদ

গোবিন্দগঞ্জে বেড়েছে ভুট্টার আবাদ
সংগৃহীত

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের করতোয়া নদীর চর ও বরেন্দ্র এলাকায় বেড়েছে ভুট্টার আবাদ। অন্যান্য ফসলের চেয়ে  অল্প সময়ে বেশি লাভের আশায় গত বছরের তুলনায় এবারো কৃষকেরা ভুট্টার চাষ করেছে। 

সার, তেল ও সেচসহ কৃষি উপকরনের মূল্য বাড়ায় ভুট্টা চাষে খরচও বৃদ্ধি পেয়েছে। তারপরেও চরের অর্থকরি ফসল হিসাবে বিবেচিত দানাদার ফসল ভুট্টার ফলনে লাভবান হওয়ার আশা চাষীদের। 

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা সীমানা দিয়ে করতোয়া নদী হিসেবে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় প্রবেশ করে আবার পার্শ্ববর্তী বগুড়ার সোনাতলা দিয়ে বেড়িয়ে গেছে বাঙ্গালী  নদী নামে।  প্রায় ৭০ কিলোমিটার জুরে এই নদী প্রবাহিত হওয়ায় নদীর দুপাশে বিশাল বালু চর। 

আগে বন্যার পর এই চর পরে থাকলেও কালক্রমে কৃষকরা তামাক, মিষ্টি আলু, গোল আলু সহ নানা ধরণের সবজি চাষ শুরু করে। কিন্তু ক্রমেই ভুট্টা চাষ লাভজনক হয়ে ওঠায় এখন করতোয়া, কাটাখালি ও বাঙ্গালি নদীর দুই পাশের বেশী ভাগ চর এলাকায়  এখন ভুট্টা চাষ রেড়েছে বলে দাবী এলাকার কৃষকদের। 

চরের কৃষকদের কাছে ভট্টা একটি অর্থকরি ফসল হিসাবে বিবেচিত হয়েছে। তাই হাইব্রিড ও উচ্চফলনশীল নতুন নতুন জাতের কারণে চরাঞ্চলের কৃষকদের মাঝে ভুট্ট্রা চাষের প্রতি আগ্রহ আরও বৃদ্ধি পেয়েছে।  নদীর ধু-ধু বালি চরে সারি সারি ভুট্টার আবাদ। এরই মধ্যেই এসেছে ভুট্টার থোড় (ফল)।  আবার কোন জমিতে ভুট্টা উঠতে শুরু করেছে। চলতি বছরও ভুট্টার ভালো ফলনের আশা চাষীদের। সেই সাথে এ ফসল আবাদে অর্থনৈতিক ভাবে আরও লাভবান হবেন তারা। 

 উপজেলার  সাহেবগঞ্জ মেরী গ্রামের বাবলু মিয়া বরেণ ভুট্টা আবাদে স্বাবলম্বী হয়েছেন জানিয়ে চরের কৃষকরা বলেন, সার, তেল ও সেচসহ কৃষি উপকরনের মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় ভুট্টা চাষের ব্যয় রেরেছে। বিঘাপ্রতি ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা খরচ হয়। ফলন পাওয়া যায় ৩৫ থেকে ৪০ মণ পর্যন্ত। বাজারে প্রতি মণ দনাদার ভুট্টা ১ হাজার টাকায় বিক্রি করতে পারলে বিঘা প্রতি ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা আয় হবে বলে আশা চাষীদের।

অন্য ফসলের চেয়ে লাভজনক হওয়ায় দিন দিন চরে ভুট্ট্রার আবাদ বৃদ্ধি পাচ্ছে দাবি করে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের  উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মেহেদী হাসান বলেন, উপজেলায় এবছর ১ হাজার ৯২০ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন জাতের ভট্টা আবাদ হয়েছে।  অথচ গত বছর ১ হাজার ৯ হেক্টর জমিতে ভুট্টার চাষ হয়েছিল। এবার প্রতি হেক্টর গড় ফলন  ১০ থেকে ১২ মেঃ টন যা আরো বৃদ্ধি পাবে।

চাষিদের উৎপাদিত ফসলের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করার পাশাপাশি বেসরকারী ভাবে আমদানি নির্ভর ভুট্টা বীজের কারনে কোন চাষী যেনো ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সেদিকে সংশ্লিষ্টরা লক্ষ্য রাখবে এমনটি প্রত্যাশা কৃষকদের  ।

সর্বশেষ

সর্বশেষ