• সোমবার   ১৫ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ৩১ ১৪২৯

  • || ১৬ মুহররম ১৪৪৪

গাইবান্ধায় চাহিদার চেয়ে ৫৫ হাজারের বেশি কোরবানির পশু উদ্বৃত্ত্ব

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ২৮ জুন ২০২২  

এ বছর গাইবান্ধার সাত উপজেলায় চাহিদার চেয়ে বেশি কোরবানির পশু মজুত রয়েছে। এবার জেলার সম্ভাব্য চহিদা মিটিয়ে কোরবানির পশু বাইরের জেলাগুলোতেও সরবরাহ করা সম্ভব হবে। কোরবানির জন্য জেলায় ১ লাখ ৪৭ হাজার ৪৯৮ পশুর চাহিদার বিপরীতে ২ লাখ ২ হাজার ৮৩৩ প্রাণী রয়েছে বলে জানিয়েছে জেলা প্রাণীসম্পদ বিভাগ। অপরদিকে কোরবানি ঈদকে ঘিরে প্রতি বছরের মতো এবারও পশু মোটাতাজা করেছেন গাইবান্ধার কৃষক ও খামারিরা।

সোমবার (২৭ জুন) জেলা প্রাণীসম্পদ কার্যালয় থেকে জানানো হয়, জেলার সাত উপজেলায় ব্যক্তি উদ্যোগ, কৃষক ও খামারীদের কাছে ২ লাখ ২ হাজার ৮৩৩টি পশু রয়েছে। আর জেলায় কোরবানির পশুর সম্ভাব্য চাহিদা ১ লাখ ৪৭ হাজার ৪৯৮টির। জেলায় কোরবানিযোগ্য পশুর মধ্যে গরু-মহিষ ৫৬ হাজার ৯৮২টি এবং ছাগল-ভেড়া আছে ১ লাখ ৪৫ হাজার ৮৫১টি।

এছাড়া এসব পশু বিক্রয়ের জন্য ২৩টি স্থায়ী পশুরহাট এবং ২০টি অস্থায়ী হাট রয়েছে। এছাড়া ৮টি অনলাইন মাধ্যমেও কোরবানির পশু ক্রয়-বিক্রয়ের ব্যবস্থা রয়েছে। যেখানে মূল্যসহ প্রতিদিন এসব পশুর ছবিসহ বিবরণ ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে আপলোড করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে পশুর হাটগুলোতে কোরবানির পশু কেনা-বেচা শুরু হয়েছে।

জেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. মাছুদার রহমান সরকার বলেন, এবার কোরবানির পশুর কোনো সঙ্কট হবে না। জেলায় চাহিদার তুলনায় ৫৫ হাজার ৩৩৫ কোরবানির পশু বেশি প্রস্তুত আছে। মাঠ পর্যায়ের কর্মীদের মাধ্যমে পশুগুলোর নিয়মিত মনিটরিং করা হচ্ছে এবং খামারীদের পশু বিক্রয়ের সুবিধার্থে অনলাইনে প্রচার চালানো হচ্ছে।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা