মঙ্গলবার   ১৮ জুন ২০২৪ || ৩ আষাঢ় ১৪৩১

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ১২:১২, ১৮ মে ২০২৪

পুষ্টিকর হার্ব সজনে পাতা যেসব কারণে খাবেন

পুষ্টিকর হার্ব সজনে পাতা যেসব কারণে খাবেন
সংগৃহীত

সজনে (Moringa বা Drumsticks) একটি বৃক্ষ জাতীয় গাছ। এর বৈজ্ঞানিক নাম  Moringa oleifera। সজনে ডাটা আমাদের কাছে সুপরিচিত। কারণ এই গাছটির ডাল পুঁতে দিলেই অযত্ন অবহেলায় বেড়ে ওঠে। সজনের কাঁচা লম্বা ফল সবজি হিসেবে খাওয়া হয়, পাতা খাওয়া হয় শাক হিসেবে। সজিনা গাছের পাতা পৃথিবীর সবচেয়ে পুষ্টিকর হার্ব। গবেষকরা সজিনা পাতাকে বলে থাকেন নিউট্রিশন্স সুপার ফুড এবং সজিনা গাছকে বলেন মিরাকেল ট্রি।

সজনের পুষ্টিগুণ :

সজনের পাতা,ফুল,ফল,বাকল,শিকড় সবই পুষ্টি ও ঔষধি গুনে পরিপূর্ণ। সজনে পাতায় রয়েছে কমলার ৭ গুন ভিটামিন C, গাজরের ৪ গুন ভিটামিন এ, দুধের ৩ গুন ক্যালসিয়াম, কলার ৩ গুন পটাশিয়াম, এবং এক কাপ দইয়ের দ্বিগুণ প্রোটিন রয়েছে।

সজনের উপকারিতা :

১. আয়ুর্বেদ মতে সজনে ক্ষুধা বাড়ায়, বলবীর্য বৃদ্ধি করে। এতে রয়েছে ক্ষার ও লবণ। সজনে পেটের অসুখে উপকারী এবং বাত ও শ্লেষ্মা সারে। গোদ ও গলগণ্ড হলে সজনে খেতে বলা হয়। সজনে চোখের জন্যও ভালো। পেটে গ্যাস উৎপন্নে বাধা দেয়। সজনে সব ধরনের ব্যথা, কাশি, নাক-মুখ থেকে রক্ত পড়া বা রক্তপিত্ত সারায় ও শরীরের অনাকাঙ্ক্ষিত দাগ দূর করে।
২. সজনে পাতা বেঁটে টিউমারে লাগালে বসে যাবে। কুষ্ঠরোগের প্রাথমিক অবস্থায় সজনে বীজের তেল বেশ কিছু দিন লাগালে সেরে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। সজনের মূলের ছাল পিষে দাদ পরিষ্কার করে প্রলেপ দিলে দাদ ভালো হয়।
৩. সজনে পাতার ঝোল খেলে সর্দিজ্বর ভালো হয়। সজনে পাতা শাকের মতো রান্না করে বা ঝোল রান্না করে খেলে হজমশক্তি বৃদ্ধি পায় এবং মুখে রুচি আসে।
৪. সজনে ফুল শাকের মতো রান্না করে খেলে জলবসন্ত হয় না।
৫. সজনে পাতার রস প্রতিদিন নিয়ম করে ৪-৬ চা চামচ খেলে উচ্চ রক্ত চাপের সমস্যা অনেকাংশে কমে যায় এবং উচ্চ রক্ত চাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে।
৬. সজনে পাতার রস ৯/১০ ফোঁটা আধ গ্লাস দুধের সাথে মিশিয়ে পান করে করলে হেঁচকি ওঠা বন্ধ হয়ে যায়।

সূত্র: ডেইলি বাংলাদেশ

সর্বশেষ

সর্বশেষ