• শনিবার   ৩১ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ১৫ ১৪২৭

  • || ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

অবসরের আগেই ধারাভাষ্যকার হয়ে গেলেন পাকিস্তান অধিনায়ক

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০  

সাদা পোশাকের টেস্ট ক্রিকেটে তিনি পাকিস্তান ক্রিকেট দলের অপরিহার্য সদস্য, দলের অধিনায়ক। কিন্তু রঙিন পোশাকের সীমিত ওভারের ক্রিকেটে কখনওই নিজের জায়গা পাকাপোক্ত করতে পারেননি ডানহাতি টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান আজহার আলি। যে কারণে এবার টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে তাকে ধারাভাষ্যকার বানিয়ে দিলো পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)।

বুধবার থেকে মুলতানে শুরু হচ্ছে পাকিস্তানের ঘরোয়া টুর্নামেন্ট ন্যাশনাল টি-টোয়েন্টি কাপ। এই টুর্নামেন্টের জন্য তারকাখচিত ধারাভাষ্য প্যানেল ঘোষণা করেছে পিসিবি। যেখানে রয়েছে দুইজন একটিভ অর্থাৎ এখনও খেলে যাচ্ছেন এমন ক্রিকেটারের নাম। তারা হলেন সেন্ট্রাল পাঞ্জাবের আজহার আলি এবং সিন্ধের শেহজার মোহাম্মদ।

লাল বলের টুর্নামেন্টে সেন্ট্রাল পাঞ্জাব ও সিন্ধের নিয়মিত খেলোয়াড় আজহার ও শেহজার। কিন্তু সাদা বলের ক্রিকেটে সুযোগ হয় না তাদের। এ কারণেই মূলত এ দুজনকে ধারাভাষ্য প্যানেলে ডেকেছে পিসিবি। এবারই প্রথমবারের মতো ধারাভাষ্যকারের মাইক্রোফোন হাতে নেবেন শেহজার।

তবে পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) বেশ কিছু ম্যাচে বিশেষজ্ঞ ধারাভাষ্যকার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছে আজহার আলি। এবার ন্যাশনাল টি-টোয়েন্টি কাপেও ধারাভাষ্যের সুযোগ পেয়ে মাইক হাতে নিতে মুখিয়ে রয়েছেন আজহার।

তার ভাষ্য, ‘ধারাভাষ্যকার হিসেবে কাজ করা বেশ রোমাঞ্চকর একটা বিষয়। এছাড়া এবার অনূর্ধ্ব-১৯ ও উদীয়মান কিছু ক্রিকেটারকেও কাছ থেকে দেখার সুযোগ পাবো। টুর্নামেন্টের ফরম্যাটের কারণে তরুণ এবং উদীয়মান ক্রিকেটারদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে সামনে। তারা কেমন করে সেটিই দেখার বিষয়।’

নিজে খুব একটা বড় ক্রিকেটার হতে না পারলেও, বংশ পরিক্রমায় পাকিস্তানের ক্রিকেটে বেশ পরিচিত নাম শেহজার মোহাম্মদ। তার দাদা পাকিস্তানের কিংবদন্তি ক্রিকেটার হানিফ মোহাম্মদ। এছাড়া বাবা শোয়েব মোহাম্মদও গায়ে জড়িয়েছেন পাকিস্তানের টেস্ট জার্সি। মজার বিষয় হলো, শেহজারের বাবা ও দাদা দুজনই অতীতে ধারাভাষ্যকারের দায়িত্ব পালন করেছেন।

ন্যাশনাল টি-টোয়েন্টি কাপের ধারাভাষ্য প্যানেলে আজহার-শেহজারের মতো আনকোরাদের পাশাপাশি রয়েছেন ওয়াসিম আকরাম, রমিজ রাজা, বাজিদ খানদের মতো নিয়মিত মুখেরাও। প্রথম দুই ম্যাচে দায়িত্ব পালনের পর ফের ফাইনাল ও সেমিফাইনালে যোগ দেবেন রমিজ। অন্যদিকে ওয়াসিম ধারাভাষ্য দেবেন ৯, ১০ ও ১১ অক্টোবরের ম্যাচগুলোতে।

একই টুর্নামেন্ট দিয়ে ধারাভাষ্যে অভিষেক হতে চলেছে পাকিস্তান নারী ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক সানা মির। এছাড়া পাকিস্তান নারী ক্রিকেট দলের নির্বাচক কমিটির সদস্য মেরিনা ইকবালকেও দেখা যাবে মাইক্রোফোন হাতে। ধারাভাষ্য প্যানেলের অন্য দুই সদস্য হলেন তারিক সাঈদ এবং সিকান্দার বখত।

টুর্নামেন্টের ম্যাচ পূর্ববর্তী ও পরবর্তী অনুষ্ঠানের উপস্থাপকের দায়িত্ব পালন করবেন জয়নাব আব্বাস ও সাবেরা পাশা।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা