শনিবার   ০২ মার্চ ২০২৪ || ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০

প্রকাশিত: ১৭:১৮, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

স্মার্টফোনেরও মেয়াদ থাকে, মেয়াদোত্তীর্ণ হলে কীভাবে বুঝবেন?

স্মার্টফোনেরও মেয়াদ থাকে, মেয়াদোত্তীর্ণ হলে কীভাবে বুঝবেন?
সংগৃহীত

শিরোনাম পড়েই হয়তো চমকে উঠলেন, ফোনও মেয়াদোত্তীর্ণ হয়? পৃথিবীতে সবকিছুরই একটি নির্দিষ্ট মেয়াদ থাকে। মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পণ্যগুলো ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়ে। তেমনি আপনার ব্যবহৃত ফোনেরও আছে একটি নির্দিষ্ট মেয়াদ।

প্রশ্ন হলো, স্মার্টফোনের মেয়া কোথায় লেখা থাকে? এবং এই ইলেকট্রনিক ডিভাইসের মেয়াদ কতদিন থাকে? অন্য যে কোনো ইলেকট্রনিক ডিভাইসের মতোই স্মার্টফোনের ব্যাটারিতে রাসায়নিক ব্যবহার করা হয়, যা কিছু সময় পর শেষ হয়ে যায়। আজকাল স্মার্টফোনে ফিক্সড ব্যাটারি আসে, ব্যাটারি নষ্ট হয়ে গেলে তা রিপ্লেস করা যায় না। ব্যাটারি নষ্ট হয়ে যাওয়ার পর মানুষ তাদের স্মার্টফোন ফেলে দেয়।

বাজারে উপলব্ধ একটি ভালো ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন বছরের পর বছর কাজ করবে। স্মার্টফোনে এই ধরনের চিপ এবং যন্ত্রাংশ ব্যবহার করা হয় যা দীর্ঘ সময় ধরে চলে, যদি কেউ ফোনটি যত্ন সহকারে ব্যবহার করেন। অনেক ফোন কোনো সমস্যা ছাড়াই ৮-১০ বছর ধরে চলে। তবে মাঝে মাঝে এর ব্যাটারি পরিবর্তন করতে হতে পারে।

একটি স্মার্টফোন যত বছরই ব্যবহার করুন না কেন, এর মেয়াদ শেষ হয় না। আসলে স্মার্টফোনের কোনো নির্দিষ্ট মেয়াদ শেষ হওয়ার তারিখ নেই। কিন্তু এমন কিছু কারণ রয়েছে যার কারণে একদিনের জন্যও সঠিকভাবে ব্যবহার না করলেও স্মার্টফোন নষ্ট হয়ে যায়। যতক্ষণ পর্যন্ত স্মার্টফোনের কোনো বড় ত্রুটি না থাকে, ততক্ষণ এটি কাজ করতে থাকে। এই সমস্যাটি ব্যাটারি, সার্কিট বোর্ড বা তারের সঙ্গে হতে পারে।

বর্তমানে স্মার্টফোন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বেশ চতুর হয়ে উঠেছে। বেশিরভাগ কোম্পানি ২-৩ বছর পর স্মার্টফোনে সফটওয়্যার আপডেট দেওয়া বন্ধ করে দেয়। যার কারণে পুরোনো স্মার্টফোন ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়ে এবং স্মার্টফোন পরিবর্তন করতে হয়।

সূত্র: ডেইলি-বাংলাদেশ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়