শুক্রবার   ২৪ মে ২০২৪ || ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

প্রকাশিত: ০৫:১২, ২৭ মে ২০২৩

গাইবান্ধায় বালাসীর মেইন ঘাট হতে নৌকা চলাচল শুরু

গাইবান্ধায় বালাসীর মেইন ঘাট হতে নৌকা চলাচল শুরু

গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার ব্রহ্মপুত্র নদীর বালাসীঘাটে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বালাসীঘাটের রাস্তার কাছ থেকে দেওয়ানগঞ্জ এর বাহাদুরাবাদ ঘাটের উদ্দেশ্যে নিয়মিত চারটি সময়ে চলছে যাত্রীবাহি নৌকা। এতে করে বালুচর হেটে গন্তব্যস্থলের উদ্দেশ্যে ছুটে চলা যাত্রীদের ভোগান্তি কমেছে৷ পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ঘাটের রাস্তার কাছ থেকে দেওয়ানগঞ্জ এর বাহাদুরাবাদ ঘাটের উদ্দেশ্যে নিয়মিত চারটি সময়ে চলছে যাত্রীবাহি নৌকা।

এতে করে বালুচর হেটে গন্তব্যস্থলের উদ্দেশ্যে ছুটে চলা যাত্রীদের ভোগান্তি কমেছে৷ তবে লঞ্চ চলাচলের জন্য বালাসীঘাটের মেইন ঘাটে যথাপযুক্ত পানি স্বল্পতার কারনে লঞ্চ চলাচল বন্ধ থাকায় বর্ষা মৌসুমে যাত্রীদের কিছুটা ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে রোদ ঝর ও বৃষ্টির কারনে। লঞ্চ ও নৌকা ইজারাদার মালিক কর্তৃপক্ষর প্রত্যয় কিছুদের মধ্যে নদীর পানি বেড়ে লঞ্চ চলাচল আবারও শুরু হবে।

প্রকাশ, গাইবান্ধা জেলার ফুলছড়ি উপজেলার বালাসীঘাটের ব্রহ্মপুত্র নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় উক্ত ঘাটের রাস্তার কাছ থেকে দেওয়ানগঞ্জ টু বাহাদুরাবাদ ঘাটের উদ্দেশ্যে সকাল থেকে নিয়মিত চারটি সময়ে চলছে যাত্রীবাহি নৌকা। এতে করে বালুচর হেটে গন্তব্যস্থলের উদ্দেশ্যে ছুটে চলা যাত্রীদের ভোগান্তি কমেছে৷ নদীর নাব্যতা সংকট এর কারনে আগে দীর্ঘ কয়েকমাস ব্রহ্মপুত্র নদীর শাখা নদী থেকে নৌকা ও অবশিষ্ট পথ বালুচর হেটে বা ঘোড়ার গাড়িতে চড়ে যেয়ে লঞ্চ বা নৌকায় উঠে যাত্রীদের গন্তব্যস্থলে পৌঁছাতে হতো। এতে করে যাত্রীদের অতিরিক্ত অর্থ ও সময় দুটোই ব্যায় হত। বর্তমানে গত ২০ দিন যাবত নদীর পানি বেড়ে বালাসীঘাট তার চিরচেনা রুপ কিছুটা ফিরে পাওয়ায় বালাসির নদীপাড়ের রাস্তা অর্থাৎ মেইন নদীতে জল আসায় যাত্রীরা মেইন নদী হতে নৌকাযোগে তাদের গন্তব্যস্থলে ছুটতে পারছে। এতে করে ভোগান্তির হাত থেকে রক্ষা পেল যাত্রীরা। তবে কাঙ্খিত মাত্রায় নদীর পানি বৃদ্ধি না পাওয়ায় লঞ্চ চলাচল বন্ধ থাকায় এই বর্ষাকালে কখনও রোদ, কখনোও বা বৃষ্টিতে রোদের প্রখরতা ও ঝড় বৃষ্টির ফলে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে যাত্রীদের।

“জামালপুর সদরের বাসিন্দা নৌকা যাত্রী আব্দুল আজিজ” বলেন- কিছুদিন আগে মেইন ঘাট হতে নদী অনেক দূরে ছিল। এতে করে খেয়া পার হতে হতো ও বালুচর হেটে বা ঘোড়ার গাড়িতে পারি দিয়ে নৌকা ও লঞ্চে উঠতে হত। এতে করে আমাদের খুব কষ্ট হত। এখন মেইন ঘাটে পানি আসায় ঘাটে নামা মাত্র নৌকা পেয়েছি, খুব ভাল লাগল।

“জামালপুর জেলার উদ্দেশ্যে নৌকা যাত্রী সুন্দরগঞ্জ এর বাসিন্দা” জানান- গত বছর নদী দূরে ছিল। লঞ্চে গিয়েছিলাম। এখন লঞ্চ পাচ্ছিনা। এখন নদী কাছে এসেছে। তবে কর্তৃপক্ষ যদি নদীটা ঠিক মত খনন করত তাহলে আমারা যাত্রীরা সেবা ভাল পেতাম।

“গাইবান্ধার বালাসীঘাট এর নৌকা ও লঞ্চ ইজারাদার মালিক কর্তৃপক্ষ ‘পাপুল সরকার ” জানান- নদীঘাট এখন বালাসীর মুল পয়েন্টে রয়েছি আমরা। আমরা এতদিন লঞ্চ চালালাম। হটাৎ করে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় চর ডুবে যাওয়ায় পানি ঘাটের কাছে চলে এসেছে। এখন আমরা পূর্ণাঙ্গভাবে ঘাটের মেইন পয়েন্ট চলে এসেছি। আপনারা যাত্রীরা আসেন নিয়মিত। কয়েকদিনের মধ্যে লঞ্চ চলাচল শুরু হবে আশাকরি। এখন সকাল ১০ টায়, ১২ টায়, দুপুর ২,৩০ মিনিট ও বিকেল ৪ টায় নিয়মিত নৌকা চলাচল করছে৷ যাত্রীদের কাঙ্ক্ষিত সেবা দিতে ও নিরাপত্তার স্বার্থে নৌকায় লাইফ জ্যাকেট, বয়া ও পলিথিন রেখেছি। আসলে স্বাচ্ছন্দে যাতায়াত করতে পারবেন।

দৈনিক গাইবান্ধা

সর্বশেষ

জনপ্রিয়

সর্বশেষ