• রোববার ২৮ মে ২০২৩ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪৩০

  • || ০৭ জ্বিলকদ ১৪৪৪

ছাগল পালন করে সফল গাইবান্ধার সাহেরা খাতুন

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ১৯ মার্চ ২০২৩  

নদী ভাঙনে সব কিছু হারিয়ে আর অভাবের মধ্যে ডুবে থাকার পরও দমে যাননি সাহেরা খাতুন। পরিশ্রম আর মেধা দিয়ে দারিদ্রতা জয়ে করে এলাকায় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন তিনি। শুধু ছাগল পালন করেই এখন একজন সফল মানুষ তিনি। ছাগল পালন করে সাহেরা খাতুন অল্প সময়েই জীবনের রং বদলে দিয়ে সাফল্যের মুখ দেখেছেন। একটি ছাগল দিয়ে শুরু করে তিনি এখন ২০টি ছাগলের মালিক। তাই তাকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। গ্রামে অনেকের কাছে তিনি এখন উদাহরণ হয়ে উঠেছেন।

ভাষারপাড়ার নদীর বাঁধে আশ্রিত জামিল উদ্দিন বলেন, ‘আমিও নদীভাঙা মানুষ। কাজ করে নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারিনি, কিন্তু সাহেরা বেগম পেরেছেন।’ গাইবান্ধার সদর উপজেলার বাগুড়িয়া গ্রামের সাহেরা খাতুন। স্বামীর নাম সাহেব আলী। ১৯৯৬ সালে ব্রহ্মপুত্র নদী ভাঙনে তার ঘরবাড়ি রায়দাসবাড়ি গ্রাম নদীগর্ভে বিলীন হলে তিন সন্তানকে নিয়ে আশ্রয় নিয়েছিলেন বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে।

চরম দরিদ্রতার মধ্যে দুই-তিন দিন পর একবেলা খেয়ে না খেয়ে দিন যাচ্ছিল তার। এ সময় অন্যের জমিতে দিন মজুরির কাজ করে একটি ছাগল ক্রয় করে লালন-পালন শুরু করেন। মাত্র ছয় মাস পর ছাগলের ৩টি বাচ্চা দেয়। এক সময় এই চারটি ছাগল থেকে ৩ বছরে তিনি ২০টি ছাগলের মালিক হয়ে যান। এর মধ্যে অর্ধেক খাসি।এভাবেই আস্তে আস্তে ছাগল ও খাসি বিক্রি করে তিনি বেশ মুনাফা পেতে থাকেন। আর টাকা জমিয়ে স্বামী সাহেব আলীকে একটি মনোহারী দোকান করে দিয়েছেন। স্বামীর দোকানের বিক্রি-বাট্টা আর খাসি-ছাগল বিক্রি থেকে মাসে সংসার খরচ ও ছেলে মেয়েদের পড়ালেখার খরচের পর হাতে মোটামুটি কিছু জমা থাকে তার।

গিদারী ইউপি চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদ ইদু বলেন, এখন আর তার কোনো কষ্ট নেই। সাহেরা খাতুনের ঘরে বেশ কয়েকটি ছাগল, ৪টি গরু, বাগুড়িয়া বাজারে একটি মনোহারী দোকান হয়েছে। আবাদী জমি কিনেছেন। শুধুমাত্র ছাগল পালন করেই জায়গা কিনে ১৪ লাখ টাকা দিয়ে বাড়িও করেছেন। কিনেছেন সোলার। ছেলে-মেয়েদের বড় করে মানুষ করেছেন। তারাও এখন কাজ করে আয় রোজগার করে। সাহেরা খাতুনকে এখন আর না খেয়ে থাকতে হয় না। অন্যের জমিতে মজুরি খাটতে হয় না। এখন তিনি আগের চেয়ে ভালো আছেন এবং স্বাবলম্বী হয়েছেন।

সাহেরা খাতুন বলেন, এক সময় আমি ভাত চোখে দেখিনি, খেয়ে না খেয়ে দিন কেটেছে। অন্যের জমিতে মজুরি খেটে একটি ছাগল কিনেছি সেই ছাগল থেকেই আমার অনেক উন্নতি হয়েছে। এখন আমি ভালো আছি। গাইবান্ধা ছাগল পালন ছাগল পালন করে সফল গাইবান্ধার সাহেরা খাতুন দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। সূত্র-ইউএনবি

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা