বুধবার   ১৯ জুন ২০২৪ || ৬ আষাঢ় ১৪৩১

প্রকাশিত: ১৬:০৩, ২১ নভেম্বর ২০২৩

সাইডলোডিং কী, কেন সতর্ক করছে গুগল?

সাইডলোডিং কী, কেন সতর্ক করছে গুগল?
সংগৃহীত

অনেকদিন ধরেই আইওএসের সাইডলোডিং অ্যাপে ম্যালওয়্যার ব্যবহার করে তথ্য চুরির অভিযোগ মিলছে। এবার অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীদের অ্যাপ সাইডলোডিংয়ের ঝুঁকি সম্পর্কে সতর্ক করেছেন গুগল প্রধান সুন্দর পিচাই। প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট গিজমোচায়নার প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা যায়।

সাইডলোডিং কী
সাইডলোডিং হলো থার্ড পার্টি ওয়েবসাইট থেকে অ্যাপ ইনস্টল করা। অর্থাৎ ডিভাইসের অফিশিয়াল অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার না করে কোনো অ্যাপ ইনস্টল করাই মূলত সাইডলোডিং। যদিও বেশিরভাগ ব্যবহারকারী নিজেদের মোবাইল ফোনে থাকা অনুমোদিত অ্যাপ স্টোরের মাধ্যমে অ্যাপ ইনস্টল করেন। এর মধ্যে অন্যতম গুগল প্লে স্টোর, অ্যাপলের অ্যাপ স্টোর, মাইক্রোনফট স্টোর ও স্যামসাং গ্যালাক্সি স্টোর। 

ডিভাইসের স্টোরগুলোতে লাখো অ্যাপ থাকা সত্ত্বেও, ব্যবহারকারীরা অন্যান্য উত্স থেকে পছন্দের অ্যাপ ইনস্টল করতে পারেন। সেক্ষেত্রে ডিভাইসে অ্যাপগুলো সাইডলোড করতে হয়। সাইডলোডিংয়ের মাধ্যমে অ্যাপ স্টোর নির্ধারিত ৩০ শতাংশ ফি এড়ানো যায়। এতে সুবিধার পাশাপাশি ঝুঁকিও রয়েছে।  

সাইডলোডিং নিয়ে কেন চিন্তিত গুগল
সাইডলোডিংয়ের মাধ্যমে অ্যাপ ইনস্টলের সুযোগ দিয়ে আসছে অ্যান্ড্রয়েড। সম্প্রতি গুগল প্রধান সুন্দর পিচাই জানান, এভাবে অ্যাপ ব্যবহারকারীরা ভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারে। ফলে নিরাপত্তা ঝুঁকি তৈরি হবে। এপিক গেমসের সঙ্গে আইনি মামলায় সাক্ষ্য দেওয়ার সময় সুন্দর পিচাই এ মন্তব্য করেন। 

গুগল সিইও অ্যান্ড্রয়েডের উন্মুক্ততা এবং ডিভাইসের পছন্দের বিষয়টি তুলে ধরেন। সম্প্রতি সুরক্ষার জন্য সাইডলোডেড অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ স্ক্যান করা শুরু করেছে গুগল।

প্রযুক্তি বিশ্লেষকদের অনেকের মতে, অ্যাপ ডাউনলোডের বিষয়ে গুগল আরও নিয়ন্ত্রণ চায়। যদিও প্লে স্টোরে থাকা অ্যাপগুলো সবচেয়ে নিরাপদ বলে দাবি জানিয়েছে প্রযুক্তি জায়ান্টটি। এদিকে অ্যাপলও দীর্ঘদিন ধরে অ্যাপ সাইডলোডিংয়ের বিরোধিতা করে আসছে। তাই আইফোনে কেবল তাদের নিজস্ব স্টোর ছাড়া বাইরে থেকে অ্যাপ ইনস্টল করা যায় না। 

সূত্র: itvbd

সর্বশেষ

সর্বশেষ