সোমবার   ২০ মে ২০২৪ || ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ১৩:০৫, ১৮ এপ্রিল ২০২৪

বয়স ত্রিশ হওয়ার আগেই এই ১৩ বিষয় সম্পর্কে সচেতন হতে হবে

বয়স ত্রিশ হওয়ার আগেই এই ১৩ বিষয় সম্পর্কে সচেতন হতে হবে
সংগৃহীত

ত্রিশ বছর পূর্ণ করা জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক। এ সময় হঠাত্‍ই মনে হয় আমি ‘বড় হয়ে গেছি’ এবং এই মুহূর্তে আমি সবকিছু করে ফেলবো। তবে সত্যি হচ্ছে এমনটা হয়ে ওঠে না। এ সময় ক্যারিয়ার ও জীবন নিয়ে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের মধ্য দিয়ে যেতে হয়। পরিকল্পনা মতো না এগোলে পরবর্তীতে হতাশা আঁকড়ে ধরতে পারে। বয়স ত্রিশ হওয়ার আগেই তাই কয়েকটি বিষয় সম্পর্কে জানতে হবে এবং সচেতন হতে হবে। জেনে নিন সেগুলো কী কী। 

১। পছন্দের কাজকে ক্যারিয়ার হিসেবে বেছে নিন
আপনার প্যাশন বা পছন্দের কাজ সম্পর্কে নিশ্চিত হোন। বেশিরভাগ সময় আমরা নিজেদের পছন্দের কাজ সম্পর্কে সচেতন থাকি না। পছন্দের কাজকেই ক্যারিয়ার হিসেবে বেছে নিন। এতে সফলতা ও আনন্দ দুটোই আসবে জীবনে। 

২। কী কাজ করছেন সেটা গুরুত্বপূর্ণ নয়, কত ভালো করে করছেন সেটা গুরুত্বপূর্ণ  
কাজ ও ক্যারিয়ার হিসেবে সেটাই বেছে নেন না কেন, কাজটি করুন পরিপূর্ণ মনোযোগ দিয়ে। কাজের প্রতি সৎ থাকা, স্বচ্ছতা, ফোকাস, আবেগ এবং উদ্দেশ্য সম্পর্কে সচেতন থাকা খুব জরুরি। 

৩। জীবনের যেকোনো বদল সহজেই মেনে নিন
জীবনে যেকোনো সময় যেকোনো কিছুই ঘটতে পারে। এটা মেনে নিতে শিখুন। কোনও ঘটনা নিয়ে অতিরিক্ত ভাববেন না বা বিচলিত হবেন না। স্ট্রেস কম নেওয়ার বিষয়টি ঠিক মতো রপ্ত করে ফেললেই নতুন নতুন বিষয় শিখতে পারবেন। 

৪। নেটওয়ার্কিংয়ের উপর জোর দিন 
নেটওয়ার্কিং বা যোগাযোগ দক্ষতা আপনাকে এগিয়ে নিয়ে যাবে বহুদূর। ক্যারিয়ারের উন্নতির জন্য তাই বিভিন্ন ক্ষেত্রের নতুন মানুষের সঙ্গে পরিচিত হওয়া জরুরি। 

৫। নিজের ব্যাপারে আত্নবিশ্বাসী হোন 
নিজের কাজের ব্যাপারে আত্নবিশ্বাসী হোন। পাশাপাশি নিজের আবেগ, অনুভূতি, সম্পর্কের ব্যাপারে স্পষ্টভাষী হওয়াও জরুরি। নিজের প্রয়োজনে স্পষ্ট ভাসায় কথা বলতে কখনও পিছপা হবেন না। 

৬। কাজ ও ব্যক্তিগত জীবন ব্যালেন্স করতে হবে 
জীবনের এই পর্যায়ে অবশ্যই ব্যক্তিগত ও পেশাদার জীবনের ব্যালেন্স নিয়ে ভাবতে হবে আপনাকে। ব্যক্তিগত সম্পর্ক, পেশাদার জীবন, নিজের মানসিক সুস্থতার বিষয়ে সীমারেখা আপনাকেই ঠিক করতে হবে। 

৭। ডিজিটাল ডিটক্স
প্রযুক্তি থেকে কিছুক্ষণের বিরতি নিয়ে নিজেকে সময় দেওয়াই হচ্ছে ডিজিটাল ডিটক্স। প্রতিদিন অন্তত কয়েক ঘণ্টা দূরে থাকুন প্রযুক্তি থেকে। এই সময় বই পড়তে পারেন বা পছন্দের অন্য কোনও কাজ করতে পারেন। 

৮। অনুভূতি নিয়ন্ত্রণে হতে হবে পারদর্শী 
নিজের আবেগকে প্রাধান্য দেওয়া জরুরি। তবে পাশাপাশি অন্যকে বোঝার ক্ষমতাও অর্জন করতে হবে আপনাকে। এজন্য নিজের আবেগ নিয়ন্ত্রণে হতে হবে পারদর্শী। এতে সম্পর্কগুলোকে সঠিকভাবে যত্ন নেওয়া সম্ভব হবে। 

৯। আর্থিক পরিকল্পনা জরুরি
উপার্জনের পাশাপাশি সঞ্চয়, বাজেট, ট্যাক্স প্রদানের মতো বিষয়গুলোতে হতে হবে চৌকস। সচেতন থাকতে হবে বিনিয়োগের বিষয়েও। 

১০। ঝুঁকি গ্রহণ করতে হবে
কমফোর্ট জোনে থাকলে জীবনের নতুন উপলব্ধি থেকে বঞ্চিত হওয়ার ঝুঁকি থাকে। জীবনের এই পর্যায়ে অবশ্যই ঝুঁকি নেওয়ার মানসিকতা রাখতে হবে। ছোট করে ব্যবসা শুরু করা, নতুন চাকরিতে জয়েন করা কিংবা কোনও স্থানে একা ঘুরতে যাওয়ার মতো কর্মকাণ্ড আপনাকে এনে দেবে আনন্দ ও সাফল্য। 

১১। স্বাস্থ্য সম্পর্কে থাকতে হবে সচেতন 
স্বাস্থ্যই সকল সুখের মূল- এটা কেবল বইয়ের ভাষা নয় বরং জীবনের অন্যতম সত্য। বিষয়টি এই বয়স থেকেই আপনাকে পুরোপুরি অনুধাবন করতে হবে। একটা সময় পর্যন্ত হয়তো স্বাস্থ্য নিয়ে সেভাবে না ভাবলেও চলতো। কিন্তু ত্রিশের পর সুস্বাস্থ্যের বিষয়টি নিয়ে ভাবতে ও কাজ করতে হবে। নিয়মিত ব্যায়াম ও সুষম খাবারের উপর দিতে হবে জোর। 

১২। ক্ষমা করুন, তবে ভুলে যাবেন না 
ক্ষমা করতে শিখুন। এতে মানসিকভাবে শান্তিতে থাকতে পারবেন। তবে ক্ষমা করলেও ভুলে যাবেন না। বরং বিষয়টি থেকে শিক্ষা নিয়ে পরবর্তীতে জীবনে একই পরিস্থিতি এড়াতে সচেতন থাকুন।  

১৩। শেখার কোনও শেষ নেই
শেখার কোনও বয়স নেই, শেষও নেই। সবসময় এই মানসিকতা ধরে রাখতে হবে। নতুন নতুন দক্ষতা শেখার মানসিকতা আপনাকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যাবে।  

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

সর্বশেষ

জনপ্রিয়

সর্বশেষ