শনিবার   ০২ মার্চ ২০২৪ || ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০

প্রকাশিত: ১৭:১৬, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

জনপ্রিয়তা বাড়াতে এবার টিকটকে যোগ দিলেন বাইডেন

জনপ্রিয়তা বাড়াতে এবার টিকটকে যোগ দিলেন বাইডেন
সংগৃহীত

চলতি বছরের ৫ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে আয়োজিত হচ্ছে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। নির্বাচনকে সামনে রেখে ভোটারদের আকৃষ্ট করতে বেশ দৌড়ঝাঁপ করছেন প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থীরা। এ অবস্থায় নিজের জনপ্রিয়তা আরো বাড়াতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টিকটকে যোগ দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) ২৬ সেকেন্ডের একটি ভিডিও শেয়ার করে জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মটিতে যাত্রা শুরু করেছেন তিনি।

টিকটকে বাইডেনের প্রচারাভিযান অ্যাকাউন্টে পোস্ট করা ভিডিওতে ৮১ বছর বয়সী এ নেতা রাজনীতি থেকে শুরু করে এনএফএল চ্যাম্পিয়নশিপের মতো বিষয়গুলো নিয়ে কথা বলেছেন।

সুপার বোল নাকি এর বিখ্যাত হাফ-টাইম শো’র মধ্যে কোনটি বেশি পছন্দ জিজ্ঞেস করা হলে বাইডেন জানান, আসল খেলাটিই তিনি বেশি উপভোগ করেন।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে টিকটকের তীব্র সমালোচনা করে আসছে যুক্তরাষ্ট্র। রিপাবলিকান আইনপ্রণেতাদের পাশাপাশি বাইডেন প্রশাসনের কাছ থেকেও একের পর এক আক্রমণের মুখে পড়েছে চীনা অ্যাপটি।

টিকটকের মালিক চীনা সংস্থা বাইটড্যান্সকে বেইজিংয়ের প্রোপাগান্ডা হাতিয়ার দাবি করে এর কঠোর সমালোচনা করেছে মার্কিন সরকার। যদিও এসব অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করেছে বাইটড্যান্স।

নিরাপত্তার উদ্বেগের কথা উল্লেখ করে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল সরকার এবং বেশ কয়েকটি অঙ্গরাজ্য সরকারি ডিভাইসে টিকটক নিষিদ্ধ করেছে।

মন্টানায় অ্যাপটিকে সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করতে চেয়েছিল রাজ্য সরকার। তবে সম্প্রতি একটি আদালত সেই সিদ্ধান্ত আটকে দিয়েছেন।

ওয়াশিংটন বরাবরই চীনা অ্যাপটির সমালোচনা করে আসলেও আপাতত এর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা বা কঠোর কোনো পদক্ষেপ নেওয়ার আশঙ্কা কম।

প্ল্যাটফর্মটি তরুণদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয়। ফলে, তাদের ভোট আকৃষ্ট করতে দলগুলো টিকটক ব্যবহারের পথই বেছে নিচ্ছে।

রোববারের ভিডিওর শেষাংশে বাইডেনকে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল, আগামী নির্বাচনে তিনি কাকে সমর্থন করবেন, নিজেকে নাকি ডোনাল্ড ট্রাম্পকে?

জবাবে হাসতে হাসতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, আপনি মজা করছেন? অবশ্যই বাইডেন।

সূত্র: ডেইলি-বাংলাদেশ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়