মঙ্গলবার   ০৫ মার্চ ২০২৪ || ২১ ফাল্গুন ১৪৩০

প্রকাশিত: ১৮:৪৫, ৭ ডিসেম্বর ২০২৩

প্রতি মাসের পাঁচ তারিখের ভোরটা খুব ভয়ংকর: সাজ্জাদ

প্রতি মাসের পাঁচ তারিখের ভোরটা খুব ভয়ংকর: সাজ্জাদ
সংগৃহীত

ঢালিউডের ছোট পর্দার অভিনেতা ইরফান সাজ্জাদ। চলতি বছরের মে মাসে ভক্তদেরকে এক হৃদয়বিদারক খবর জানান তিনি। অভিনেতার ৬ মাসের অনাগত যমজ সন্তান পৃথিবীর আলো দেখতে পায়নি।

সে সময় ইরফান জানিয়েছিলেন, আমার স্ত্রী শারমিন সাজ্জাদ দেড় বছর ধরে অসুস্থ। চেন্নাইয়ের অ্যাপোলো হাসপাতালে তার নিয়মিত চিকিৎসা চলছিল। এরমধ্যে জানতে পারি আমার স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা। গত (৫ মে) দুপুরে চেন্নাই থেকে ঢাকার ফ্লাইটের টিকিট কনফার্ম ছিল। কিন্তু হঠাৎ সেদিন সকালে আমার স্ত্রী অসুস্থ হয়ে পড়েন। এরপর দ্রুত তাকে হাসপাতালে নেওয়া হলে বড় সার্জারি করা হয়। কিন্তু চিকিৎসক আমাদের ৬ মাসের অনাগত সন্তানকে পৃথিবীর আলো দেখাতে পারেননি।

ওই ঘটনার পর থেকেই প্রতিমাসের ৫ তারিখ আঁতকে ওঠেন ইরফান। কোনোভাবেই নিজের মন থেকে মুছে ফেলতে পারেননি সন্তান হারানোর সেই বেদনার কথা। 

মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) অভিনেতার ফেসবুকে দেওয়া এক স্ট্যাটাসেও উঠে আসল সেই কষ্টকর মুহূর্তের স্মৃতি। যেখানে ইরফান সাজ্জাদ লিখেছেন, প্রতিমাসের পাঁচ তারিখের ভোর রাতটা আমার জন্য খুব ভয়ংকর হয়। ৫ মে ২০২৩ দিনটা যদি না আসতো! 

এরপরই সেই স্ট্যাটাসে দুই সন্তানের নাম জুড়ে দিয়েছেন অভিনেতা। ইরফান চেয়েছিলেন যমজ ছেলে-মেয়ের নাম রাখবেন ‘প্রিয়’ ও ‘মায়া’। এ বিষয়ে ইরফান সাজ্জাদ বলেন, প্রতি মাসের পাঁচ তারিখের ভোরটা খুব ভয়ংকর হয় আমার জন্য। আমাকে ঠিক থাকতে দেয় না দিনটা। ভয়ংকর দিনটি না এলে অন্যরকম হতে পারতো জীবন।

অভিনেতা জানালেন, সেই ট্রমা কাটিয়ে এখন আবার স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে শুরু করেছেন তিনি। ইরফানের ভাষায়, এটা আমার জীবনের দ্বিতীয় যাত্রা। স্ত্রীকে নিয়ে দুই বছর চেন্নাইয়ে ছিলাম। কাজ করিনি নিয়মিত। তবে এখন আমরা দু’জনেই কাজে ফিরেছি। এটা আমাদের নতুন শুরু।

সূত্র: ডেইলি-বাংলাদেশ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়