মঙ্গলবার   ১৮ জুন ২০২৪ || ৩ আষাঢ় ১৪৩১

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ০৯:৫৯, ১০ জুন ২০২৪

দিল্লির ব্যস্ত সিডিউলে মায়ের সঙ্গে ডাইনিং টেবিলে পুতুল!

দিল্লির ব্যস্ত সিডিউলে মায়ের সঙ্গে ডাইনিং টেবিলে পুতুল!
সংগৃহীত

এরই ফাঁকে রোববার (০৯ জুন) দুপুরে ঘটে গেল এক মজার ঘটনা। খোদ প্রধানমন্ত্রী মা, শেখ হাসিনার সঙ্গে খাবার খেয়ে সেই টেবিলে বসা ছবি নেটদুনিয়ায় ছড়িয়ে দিলেন জাতির পিতার দৌহিত্রী সায়মা ওয়াজেদ পুতুল।

যিনি নিজেও জাতিসংঘের স্বাস্থ্য বিষয়ক অন্যতম নীতিনির্ধারক সংস্থা ডব্লিউএইচও এর আঞ্চলিক পরিচালক হিসেবে দায়িত্বরত রয়েছেন। প্রসঙ্গত, দিল্লি সফরে মা প্রধানমন্ত্রীর সফরে সঙ্গী হিসেবেও আছেন বঙ্গবন্ধুর এ নাতনি।

দুপুরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক-এ নিজের পেইজে মায়ের সঙ্গে খাবার খাওয়ার ছবি পোস্ট করেন পুতুল। এরপর থেকেই ছবিটি তাদের অনুসারীরা শেয়ার করতে থাকেন বিভিন্ন মাধ্যমে।

সন্ধ্যায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী ও নতুন মন্ত্রিসভার শপথ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ পুতুলও অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাইসিনা হিলের সেই রাজকীয় আয়োজনে।

ব্যস্ত কার্যসূচি থেকে সময় বরে করে মা-মেয়ের তোলা এ মধুর ছবিটি সাড়া ফেলেছে নেটিজেনদের মধ্যে।  সন্ধ্যায় সুসজ্জিত গাড়িবহরে অতিথি সরকার প্রধান শেখ হাসিনাকে নিয়ে আসা হয় রাইসিনা হিলে৷ এছাড়া, রাজকীয় এ আয়োজনে সালমান এফ রহমান, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এবং বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটুও উপস্থিত ছিলেন।

তৃতীয় মেয়াদে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন নরেন্দ্র মোদি। এর মধ্যদিয়ে কংগ্রেস নেতা জওহরলাল নেহরুর পর টানা তৃতীয়বার দেশটির প্রধানমন্ত্রী হলেন তিনি। 

শনিবার (৮ জুন) সকাল সোয়া ১০টায় শপথ অনুষ্ঠানে অংশ নিতে ঢাকা ত্যাগ করেন শেখ হাসিনা। শপথ অনুষ্ঠান শেষে আগামী সোমবার (১০ জুন) দুপুরে দেশে ফিরবেন তিনি।

এনডিটিভি জানায়, মোদির শপথ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও প্রতিবেশী দেশগুলোর বেশ কয়েকজন নেতা উপস্থিত ছিলেন। রাষ্ট্রপতি ভবনে আট হাজারের বেশি অতিথির জন্য ব্যবস্থা করা হয়।

বুধবার (৫ জুন) টেলিফোনে নরেন্দ্র মোদিকে অভিনন্দন জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আলাপকালে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানান নরেন্দ্র মোদি। শেখ হাসিনা এই আমন্ত্রণ সাদরে গ্রহণ করেন।

উল্লেখ্য, ভারতের নির্বাচন কমিশনের ফলাফল অনুযায়ী, এবারের নির্বাচনে মোদির ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) এককভাবে ২৪০টি এবং তার নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট পেয়েছে ২৯২টি আসন। 

সূত্র: সময় নিউজ

সর্বশেষ

সর্বশেষ