মঙ্গলবার   ১৬ এপ্রিল ২০২৪ || ২ বৈশাখ ১৪৩১

প্রকাশিত: ১৭:১০, ২ মার্চ ২০২৪

১২ ডিসি সম্মেলনের প্রস্তাব বাস্তবায়ন ৮২ দশমিক ৩০ শতাংশ

১২ ডিসি সম্মেলনের প্রস্তাব বাস্তবায়ন ৮২ দশমিক ৩০ শতাংশ
সংগৃহীত

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের পর প্রথমবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে মাঠ প্রশাসনের সবচেয়ে বড় আয়োজন জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলন। এবার একদিন বাড়িয়ে চারদিন হবে এ সম্মেলন। আগামী ৩ মার্চ থেকে শুরু হয়ে এটি চলবে ৬ মার্চ পর্যন্ত। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার কার্যালয়ের শাপলা হলে ঐদিন সকাল সাড়ে ১০টায় সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন। এরপর করবী হলে ডিসিরা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মুক্ত আলোচনায় অংশ নেবেন। সম্মেলনের মূল কার্য-অধিবেশনগুলো হবে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের তথ্যানুযায়ী, ২০০৯ থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত ১২টি সম্মেলনে ডিসিরা যেসব প্রস্তাব তুলেছেন, তা বাস্তবায়নের গড় হার ৮২ দশমিক ৩০ শতাংশ। সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের এ হারকে সন্তোষজনক মনে করছে সরকার।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে প্রকাশিত সম্মেলনের কর্মসূচিতে দেখা গেছে, মন্ত্রিপরিষদ সচিবের সভাপতিত্বে কার্য-অধিবেশনগুলোতে ডিসিদের প্রস্তাবগুলো নিয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়-বিভাগের মন্ত্রী/প্রতিমন্ত্রী কিংবা সচিবদের খোলামেলা আলোচনা হবে। এবার রাষ্ট্রপতির সঙ্গে ডিসিদের সৌজন্য সাক্ষাৎ, মতবিনিয়ম ও নৈশভোজের পর্ব থাকছে না। কারণ, রাষ্ট্রপতি আজ শনিবার সন্ধ্যায় চিকিৎসার উদ্দেশে যুক্তরাজ্য যাচ্ছেন।

অন্যান্য বছরের মতো আয়োজন থাকছে সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন স্পিকারের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ, মতবিনিময় এবং নৈশভোজের।

এছাড়া সম্মেলনের শেষ দিন সুপ্রিম কোর্ট ভবনে প্রধান বিচারপতির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন ডিসিরা। প্রধান বিচারপতি কর্মকর্তাদের উদ্দেশে নির্দেশনা দেবেন বলে জানা গেছে। এবার সেনাবাহিনী প্রধানের সঙ্গে ডিসিদের দেখা হচ্ছে না। এ ছাড়া সম্মেলনের শেষ দিন প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। এ সভায় ডিসিরাও উপস্থিত থাকবেন। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে সভার পর প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে নৈশভোজে অংশ নেবেন কর্মকর্তারা।

জানা গেছে, ২০০৯ সাল থেকে এ পর্যন্ত মোট ১৩টি সম্মেলনের আয়োজন করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। মাঝে করোনা মহামারির কারণে ২০২০ এবং ২১ সালে সম্মেলন হয়নি। ১৩টি সম্মেলনের মধ্যে ১২টি সম্মেলনের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের হার ৮২ শতাংশের বেশি। গত বছরের সম্মেলনের সিদ্ধান্তগুলো এখনো বাস্তবায়ন শেষ হয়নি। ফলে এ সম্মেলনের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের হার জানাতে পারেনি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। তবে সার্বিকভাবে সম্মেলন থেকে গৃহীত সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে সরকার বেশ সন্তুষ্ট বলে মনে করেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা।

সূত্র: ডেইলি-বাংলাদেশ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়

সর্বশেষ

শিরোনাম

ইন্টার্ন চিকিৎসকদের ভাতা বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপনদেশবাসীকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা প্রধানমন্ত্রীরঈদে বেড়েছে রেমিট্যান্স, ফের ২০ বিলিয়ন ডলারের ওপরে রিজার্ভ১৪ কিলোমিটার আলপনা বিশ্বরেকর্ডের আশায়তাপপ্রবাহ বাড়বে, পহেলা বৈশাখে তাপমাত্রা উঠতে পারে ৪০ ডিগ্রিতেনেইমারের বাবার দেনা পরিশোধ করলেন আলভেজ‘ডিজিটাল ডিটক্স’ কী? কীভাবে করবেন?বান্দরবানে পর্যটক ভ্রমণে দেয়া নির্দেশনা চারটি স্থগিতআয়ারল্যান্ডের সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রীকে শেখ হাসিনার অভিনন্দনসুইজারল্যান্ডে স্কলারশিপ পাওয়ার উপায় কিবৈসাবি উৎসবের আমেজে ভাসছে ৩ পার্বত্য জেলাসবাই ঈদের নামাজে গেলে শাহনাজের ঘরে ঢুকে প্রেমিক রাজু, অতঃপর...