বুধবার   ১৭ জুলাই ২০২৪ || ১ শ্রাবণ ১৪৩১

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত : ১৩:০৩, ৭ জুন ২০২৪

যে খেলা গ্রামে উৎসব আনে

যে খেলা গ্রামে উৎসব আনে
সংগৃহীত

লাঠি নিয়ে একে একে এগিয়ে যাচ্ছেন কয়েকজন অর্ধবয়সী লোক। অপর দিক থেকে আবার লাঠি নিয়ে এগিয়ে এসেন আরও কয়েকজন। তারা একে অপরকে প্রতিহত করছেন। সময় যত গড়াচ্ছে লাঠির আঘাত ততটাই তীব্র হচ্ছে।

মাঠের চার পাশে শত শত মানুষ দাড়িয়ে আছে। কিন্ত এত কিছুর পরেও তাদের বাধা দিতে এগিয়ে আসেননি কেউ। কয়েক ঘণ্টা ধরে চলা এমন পরিস্থিতিতে নাজেহাল অবস্থা সবার। ৪টি দলে রঙ বেরংয়ের সাজে খেলায় অংশ নেন বিভিন্ন বয়সী প্রায় ৬০ জন।

তবে একে অপরের লাঠির আঘাতে কেউ ব্যথা পাচ্ছেন না। বরং আনন্দের সঙ্গে সবাইকে বিনোদন দিচ্ছেন তারা। এটি কোনো মারামারি বা সংঘর্ষ নয়। গ্রাম বাংলার হারিয়ে যাওয়া ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলার দৃশ্য এটি। যা দেখতে ভিড় করেছেন দূর দূরান্ত থেকে বিভিন্ন বয়সী মানুষ।

ঢাক ঢোলের শব্দে দুই লাঠি, চার লাঠি, শর্কি খেলা, তলোয়ার ও ছুরি ঠেকিসহ নানান খেলা প্রদর্শন করেন খেলোয়াড়রা। এমন খেলা রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলার দক্ষিণ বালিয়াকান্দি গ্রামে অনুষ্ঠিত হয়। মৃত সানারন্দিন মোল্লার স্মৃতি ধরে রাখতে তার কাতার প্রবাসী ছেলে জাবেদ মোল্লা এই ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলার আয়োজন করেন। যা উৎসবে পরিণত হয় গ্রামের মানুষদের মাঝে।

খেলা দেখতে আসা অতিথি ও আয়োজকরা বলেন, কালের বিবর্তনে হারিয়ে যাচ্ছে এসব গ্রামীণ খেলা। ফলে দিন দিন সমাজে অপরাধ প্রবণতা বেড়ে যাচ্ছে। বালিয়াকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর বিশ্বাস আলম বলেন, নতুন প্রজন্ম আবারো লাঠি খেলা শুরু করেছে। আমরা এর সার্বিক সাফল্য কামনা করছি। লাঠি খেলার এমন আয়োজনকে ঘিরে উৎসবের আমেজ বয়ে যায় পুরো এলাকায়। এমন আয়োজন যেন প্রতি বছর হয়, সেই আকাঙ্ক্ষা স্থানীয়দের।

সূত্র: কালবেলা

সর্বশেষ

জনপ্রিয়

সর্বশেষ