বৃহস্পতিবার   ১৮ এপ্রিল ২০২৪ || ৪ বৈশাখ ১৪৩১

প্রকাশিত: ১৮:৩০, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

বাড়ির উঠনে সরিষার জৌলুস, গড়ছে রেকর্ড

বাড়ির উঠনে সরিষার জৌলুস, গড়ছে রেকর্ড
সংগৃহীত

সরিষার আবাদে রেকর্ড গড়ছে রাজশাহী। ২০২১ সালের পর লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সরিষার আবাদ ও উৎপাদন। সরকারের ভোজ্যতেলের স্বনির্ভরতা অর্জনের পলিসির কারণে গেরস্থ বাড়ির উঠনে উঠনে তাই সরিষার জৌলুস। উৎপাদন খরচ কম ও ভালো দাম থাকায় অন্য ফসলের মতো চিন্তার ভাঁজও নেই কৃষকদের কপালে। হাসি মুখেই সরিষার গৌরবময় জৌলুসের জানান দিচ্ছেন চাষিরা। এক বছরের ব্যবধানেই রাজশাহীতে সরিষার আবাদ বেড়েছে ৩৪ হাজার ৮০০ হেক্টর জমিতে। আর বিগত এক দশকে চারগুণের বেশি বেড়েছে।

কৃষক জানান, সরিষা আবাদে শ্রম দিতে হয় কম। খরচও কম। আবার দামও বেশি। সরিষা এখন বেশ লাভজনক। এ কারণে সরিষা চাষে আগ্রহী হচ্ছেন চাষিরা। সঙ্গে রয়েছে সরকারের পৃষ্টপোষকতা।

জেলা কৃষি দফতরের তথ্য বলছে, জেলায় সরিষার চাষ হয়েছে ৭৭ হাজার ৩৫০ হেক্টর। যা গত বছর ছিল ৪২ হাজার ৫৫০ হেক্টর জমিতে। এ বছর সবচেয়ে বেশি সরিষা চাষ হয়েছে গোদাগাড়ী উপজেলায়। এই উপজেলায় ২২ হাজার ১১০ হেক্টর জমিতে সরিষা চাষ হয়েছে।

গোদাগাড়ী ও পবা উপজেলা ঘুরে দেখা গেছে, মাঠজুড়ে এখন সরিষা কাটা-কাড়াই কাজ চলছে। কিছু জমিতে এখনো সরিষার ফুল ফুটে রয়েছে। অধিকাংশ সরিষা এখন গেরস্থের উঠনে। আর এই সরিষা মাড়াইয়ে চাষি পরিবারের ব্যস্ততাও বেড়েছে।

পবা উপজেলার সরিষা চাষি উজ্জ্বল আলী বলেন, দুইদিন আগে সরিষা কেটে উঠনে রোদে শুকাতে দিয়েছি। রোদে শুকিয়ে কিছু সরিষা খসে খসে পড়ছে। সেগুলো সংগ্রহ করতে পরিবারের সদস্যরাও ব্যস্ত সময় পার করছে। একদিন পর ভালোমতো শুকালে মেশিনের সাহায্যে সব সরিষা একসঙ্গে মাড়াই করা হবে।

আরেক চাষি সাত্তার আলী বলেন, গত দুই বছর থেকে সরিষার আবাদ করছি। এখন আর বাইরে থেকে তেল কেনা লাগে না। নিজের পরিবারের চাহিদা পূরণের পাশাপাশি অতিরিক্ত সরিষা বিক্রি করছি। ভালো দাম থাকায় লাভই হচ্ছে।

রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের গত ১০ বছরের সরিষার আবাদ ও উৎপাদন চিত্রে দেখা যায়, ২০১২-১৩ অর্থবছরে সরিষার আবাদ করা হয়েছিল ২০ হাজার ৭০৩ হেক্টর জমিতে। উৎপাদন হয়েছিলো ২৩ হাজার ৪৭২ মেট্রিক টন, ২০১৩-১৪ অর্থবছরে ১৯ হাজার ৮১১ হেক্টর জমিতে উৎপাদন হয়েছিলো ২৩ হাজার ৭৭৩ মেট্রিক টন, ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ১৯ হাজার ৬৯১ হেক্টর জমিতে ২৪ হাজার ৮৫৫ মেট্রিক টন, ২০১৫-১৬ সালে ১৯ হাজার ৮৫৮ হেক্টর জমিতে উৎপাদন ২৩ হাজার ৮৩৫ মেট্রিক টন, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ১৯ হাজার ৪৬১ হেক্টর জমিতে ২৩ হাজার ৮৫৪ মেট্রিক টন, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ১৮ হাজার ৮০০ হেক্টর জমিতে ২৩ হাজার ৭৩৫  মেট্রিক টন, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ২১ হাজার ২৫২ হেক্টর জমিতে ২৯ হাজার ১৬৫ মেট্রিক টন, ২০১৯-২০ অর্থবছরে ২৩ হাজার ১৯৯ হেক্টর জমিতে ৩৪ হাজার ৪৪৮ মেট্রিক টন, ২০২০-২১ অর্থবছরে ২৩ হাজার ৫৪৩ হেক্টর জমিতে ৩৩ হাজার ৭১০ মেট্রিক টন, ২০২১-২২ অর্থবছরে ২৬ হাজার ১৫৬ হাজার হেক্টর জমিতে ৪০১ হাজার ৮২৭ মেট্রিক টনি এবং ২০২২-২৩ অর্থবছরে ৪২ হাজার ৫৫০ হেক্টর জমিতে সরিষা উৎপাদন ৬৯ হাজার ৭৫৮ মেট্রিক টন।

রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক মোজদার হোসেন বলেন, ভোজ্যতেলের আমদানি নির্ভরতা কমাতে সরিষার আবাদ বাড়াতে কৃষকদের সার-বীজ দিয়ে সহযোগিতা করা হচ্ছে। পাশাপাশি কৃষকদের নিয়মিত পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। ভালো দাম ও কম খরচের লাভজনক এ আবাদ আগামীতে আরো বাড়বে।

সূত্র: ডেইলি-বাংলাদেশ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়

সর্বশেষ

শিরোনাম

ইন্টার্ন চিকিৎসকদের ভাতা বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপনদেশবাসীকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা প্রধানমন্ত্রীরঈদে বেড়েছে রেমিট্যান্স, ফের ২০ বিলিয়ন ডলারের ওপরে রিজার্ভ১৪ কিলোমিটার আলপনা বিশ্বরেকর্ডের আশায়তাপপ্রবাহ বাড়বে, পহেলা বৈশাখে তাপমাত্রা উঠতে পারে ৪০ ডিগ্রিতেনেইমারের বাবার দেনা পরিশোধ করলেন আলভেজ‘ডিজিটাল ডিটক্স’ কী? কীভাবে করবেন?বান্দরবানে পর্যটক ভ্রমণে দেয়া নির্দেশনা চারটি স্থগিতআয়ারল্যান্ডের সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রীকে শেখ হাসিনার অভিনন্দনসুইজারল্যান্ডে স্কলারশিপ পাওয়ার উপায় কিবৈসাবি উৎসবের আমেজে ভাসছে ৩ পার্বত্য জেলাসবাই ঈদের নামাজে গেলে শাহনাজের ঘরে ঢুকে প্রেমিক রাজু, অতঃপর...