• শুক্রবার   ২৩ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ৭ ১৪২৭

  • || ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

বর্ষায় দাদ বা অন্যান্য চর্মরোগ থেকে মুক্তির উপায়

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ৮ সেপ্টেম্বর ২০২০  

বর্ষায় অন্যান্য রোগের সঙ্গে সঙ্গে চর্মরোগও দেখা দেয়। কারণ বৃষ্টি নামলেই বাড়ে ছত্রাকজনিত রোগের প্রাদুর্ভাব। এসময় দাদ, একজিমা, অ্যাথলেট ফুট ইত্যাদি রোগের আশঙ্কা বেড়ে যায়। যা বেশ যন্ত্রণাদায়ক।

ভারতের সংবাদমাধ্যম জি নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নখের কোণে সমস্যা থেকে চর্মরোগ, সবকিছুর পেছনেই অনেক সময় থাকে ছত্রাক। তাই চলুন জেনে নেয়া যাক এসব সমস্যা সমাধানের কিছু পরামর্শ-

দাদ

চামড়ার ওপর গোল চাকার মতো লালচে ক্ষতস্থান সৃষ্টি হয় এই রোগে। ক্ষতস্থানে চুলকানি হয়। ঘাড়, পায়ের পাতা, বগলে এ ধরনের ক্ষত হতে পারে। সেক্ষেত্রে পরিষ্কার জামাকাপড় পরতে হবে। ক্ষতস্থানে কাটাছেঁড়া করা যাবে না। অ্যান্টি ফাংগাল ক্রিম লাগাতে হবে।

অ্যাথলেট ফুট

এটি একটি ছত্রাকজনিত রোগ। সাধারণত পায়ের পাতা কিংবা দুই আঙুলের মাঝখানে চুলকানি বা জ্বালা অনুভূত হয়। চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী এ সমস্যার ক্ষেত্রে পা সাবান দিয়ে ধুয়ে শুকিয়ে নিতে হবে। অ্যান্টি ফাংগাল ওষুধ প্রয়োগ করতে হবে এবং খোলা জুতা পরতে হবে।

একজিমা

ত্বকে জ্বালা, ত্বক ফেটে যাওয়া, চুলকানি এগুলো একজিমার লক্ষণ। এক্ষেত্রে নারকেলের তেল লাগালে আরাম পেতে পারেন। এছাড়া সব সময় সুতির কাপড় পরার দিকেও খেয়াল রাখতে হবে।

টিনিয়া ক্যাপিটিস

এই রোগে মাথার ত্বকে দাদ হয়। তবে এই ছত্রাকজনিত রোগের ফলে ক্ষতস্থান দেখা যেতে পারে ভুরু ও দাড়িতেও। এক ব্যক্তি থেকে অন্য ব্যক্তিকে সংস্পর্শের মাধ্যমে ছড়ায় এই রোগ। এমনকি তোয়ালে, চিরুনি, টুপি, বালিশের মাধ্যমেও ছড়িয়ে পড়তে পারে। অ্যান্টি ফাংগাল শ্যাম্পু এক্ষেত্রে কার্যকর হতে পারে।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা