• সোমবার   ২৪ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১১ ১৪২৮

  • || ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

চিপ সংকটে বিশ্ব, বাড়তে পারে প্রযুক্তি পণ্যের দাম

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ৪ ডিসেম্বর ২০২১  

প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বর্তমান বিশ্ব ভয়াবহ চিপ সংকটে পড়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে প্রস্ততকারকরা ক্রমবর্ধমানভাবে সেমিকন্ডাক্টর সরবরাহ নিশ্চিত করতে হিমশিম খাচ্ছেন। অথচ এই চিপের ওপর নির্ভরশীল আমাদের নিত্যপ্রয়োজনীয় কম্পিউটার থেকে শুরু করে মোবাইল ফোন এমনকি গাড়ি পর্যন্ত। এতে উৎপাদনে বিঘ্ন ঘটছে। ফলে সংশ্লিষ্ট পণ্যেরও মূল্যবৃদ্ধির ঝুঁকি তৈরি হচ্ছে।

পরিস্থিতি এমন দাঁড়িয়েছে যে মার্কিন কংগ্রেস বিষয়টি নিয়ে জরুরি আলোচনার আহ্বান জানিয়েছে বাইডেনের প্রশাসন। মার্কিন বাণিজ্যমন্ত্রী গিনা রাইমন্ডো শুক্রবার সিএনএনকে বলেছেন, ২০২২ সালেও এই পরিস্থিতি থেকে উত্তরণ ঘটবে কি না সন্দেহ আছে। ফলে যুক্তরাষ্ট্রকেই ‘কিছু একটা করতে হবে’।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই পরিস্থিতির পেছনে বেশ কয়েকটি কারণ দায়ী। প্রথমটি অবশ্যই করোনা ভাইরাস মহামারি। এর কারণে গত বছর ভয়াবহ বৈশ্বিক মন্দা দেখা দিয়েছিল, ভেঙে পড়েছিল সরবরাহ ব্যবস্থা। এতে বদলে গেছে ভোক্তাদের কেনাকাটার পদ্ধতিও

মহামারিতে চাহিদা কমে যাওয়ায় গত বছর গাড়ি নির্মাতারা চিপের অর্ডার কমিয়ে দিয়েছিলেন। ঠিক সেই সুযোগটাই কাজে লাগান অন্য যেসব পণ্যের চাহিদা বেড়েছে তাদের নির্মাতারা। তারা যতটা সম্ভব চিপের মজুত বাড়িয়ে নেন। এছাড়া চীনা প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা, প্রাকৃতিক দুর্যোগও চিপ সংকট তৈরিতে বড় অবদান রেখেছে। কম্পিউটার চিপ শুধু দামি গাড়িতেই ব্যবহৃত হয় না, ছোটখাটো অন্য ইলেক্ট্রনিক সরঞ্জামগুলোতেও এর দরকার পড়ে। অথচ চিপের এই সংকট ক্রমেই আরও ভয়াবহ হয়ে উঠছে।

বিশ্লেষকরা সতর্ক করেছেন, এই পরিস্থিতি আগামী বছরের পুরো সময় জুড়ে থাকতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের ১৬৯টি প্রতিষ্ঠান সেমিকন্ডাক্টরের অভাবে উৎপাদন কমিয়ে দিয়েছে। সাধারণ একেকটি গাড়িতে গড়ে ৫০ থেকে ১৫০টি চিপ দরকার হয়। নেভিগেশন কন্ট্রোল, ড্রাইভার অ্যাসিসট্যান্স সিস্টেমের মতো ক্ষেত্রগুলোতে এর ব্যবহার ক্রমেই বাড়ছে। গত বছর করোনা মহামারির কারণে গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো সাময়িকভাবে বন্ধ ছিল। সে সময় তাদের চিপগুলো চলে যায় স্মার্টফোন, ল্যাপটপ ও গেমিং ডিভাইস কোম্পানিগুলোর হাতে।

বিএমডব্লিউর মালিকানাধীন মিনি জানিয়েছে, সেমিকন্ডাক্টরের অভাবে তাদের ইংল্যান্ডের একটি কারখানা তিন দিন বন্ধ রাখতে হয়েছিল। ফোর্ড বলেছে, চিপ সংকটের কারণে চলতি বছর অন্তত ১১ লাখ গাড়ি কম উৎপাদন হবে। চিপ সংকটের কালোছায়া নেমেছে ইলেক্ট্রনিক পণ্য নির্মাতাদের ওপরও।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা