• মঙ্গলবার   ০৫ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ২০ ১৪২৯

  • || ০৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

পলাশবাড়ীতে অর্ধশত পরিবারের চলাচলের ব্যবস্থা করলেন ইউপি চেয়ারম্যান

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ১৮ মে ২০২২  

অর্ধশত পরিবারের প্রায় দেড় শতাধিক মানুষের চলাচলের জন্য শত বছরের রেকর্ডভুক্ত পুরাতন রাস্তা নির্মান করে দিলেন গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার ৬নং বেতকাপা ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজার রহমান মোস্তা। এতে করে দেড়রশতাধিক মানুষ এখন নির্বিঘ্নে তাদের বাড়ীতে যাতায়াত করতে পারবেন।

মঙ্গলবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় ইউনিয়নের হাসনেরপাড়া গ্রামে কর্মসৃজন(কর্মসূচির) শ্রমিকরা শতভাগ উপস্থিত থেকে রাস্তা তৈরির কাজ করছেন।

জানা যায়, হাসনের পাড়া গ্রামের প্রায় অর্ধশত পরিবারের দেড় শতাধিক মানুষ দীর্ঘ বছর থেকে জমির আইল দিয়ে যাতায়াত করে আসছিলেন।দীর্ঘ বছর থেকে চেষ্টা করেও তারা যাতায়াতের জন্য রাস্তা পায়নি।এজন্য অনেক কষ্ট করেই তারা জমির আইল ব্যবহার করে এতদিন যাতায়াত করতো।বিশেষ করে বর্ষা মৌসুমে এসব মানুষদের অনেক কষ্ট হতো। বিষয়টি জানতে পেরে ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজার রহমান মোস্তা ও ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মালেক মিয়া উদ্যোগ নেয় তাদের যাতায়াতের রাস্তা তৈরির।

সরকারি রেকর্ডভুক্ত প্রায় কোয়াটার কিলোমিটার রাস্তা কর্মসৃজন কর্মসূচির শ্রমিকদের দিয়ে তৈরি হচ্ছে যাতে ওই পরিবারগুলোর মানুষজন নির্বিঘ্নে যাতাযাত করতে পারে।

ওই গ্রামের লাল মিয়াসহ বেশ কয়েক গ্রামবাসী জানান, আমরা জন্মের পর থেকেই কষ্ট করে জমির আইল দিয়ে যাতায়াত করছি। এবার চেয়ারম্যান,মেম্বার আমাদের রাস্তার ব্যবস্থা করে দিয়েছে আমাদের খুব উপকার হলো।

ইউপি সদস্য মালেক মিয়া জানান, ছোট বেলা থেকেই দেখে আসছি ওই পরিবারগুলো কষ্ট করে চলাচল করে,তাই এসব পরিবার যাতে ভালভাবে চলাচল করতে পারে সেই ব্যবস্থাই নেয়া হয়েছে।

ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজার রহমান মোস্তা বলেন,পরিবারগুলো যাতে নির্বিঘ্নে চলাচল করতে পারে এজন্য ওই ওয়ার্ডের কর্মসৃজন কর্মসূচির শ্রমিকদের কাজে লাগিয়ে রাস্তা তৈরি করে দেয়া হচ্ছে। ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায় সেখানে ২৩ জন শ্রমিক কাজ করছেন রাস্তা সংস্কারে। ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায় কর্মসৃজন কর্মসূচির শ্রমিকরা গ্রামের খালাখন্দ রাস্তাগুলো সংস্কারের কাজ করছেন।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা