• সোমবার   ২৪ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১১ ১৪২৮

  • || ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

গাইবান্ধায় মৎস্য খামারের পাশে শিম চাষে লাভবান মৎসখামারি

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ৬ ডিসেম্বর ২০২১  

আগাম শিম চাষ করে ব্যাপক লাভবান হয়েছেন মৎস্যখামারি মুনছুর আলী। তার দেখাদেখি গ্রামে এখন অনেক চাষি শিম চাষ করে লাভবান হচ্ছেন।মুনছুর আলীর শিম চাষাবাদ করার মত জায়গা জমি ছিল না। তিনি তার মৎস্য খামেরের চারধারে মাঁচা ঝুলিয়ে চলতি মৌসুমে শিম চাষ শুরু করেন।

মুনছুর আলী গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের সোনারায় গ্রামের বাসিন্দা। দীর্ঘদিন থেকে তিনি মৎস্য খামার পরিচালনা করে আসছেন। খামোরের ধারে শিম চাষ করে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছেন। শিম বিক্রি করে ইতিমধ্যে স্বাবলম্বী হয়ে উঠেছেন তিনি।

তিনি বলেন, প্রতিবছর স্থানীয় কিছু সংখ্যক শিম চাষি আগাম শিম চাষ করে ব্যাপক মুনাফা অর্জন করেন। তাদের দেখে তিনি মৎস্য খামারের ধারে শিম চাষ শুরু করেন। প্রায় এক একর জমির মধ্যে তার মৎস্য খামার। ইতিমধ্যে তিনি ১০ হাজার টাকার শিম বিক্রি করেছেন। আশা করছি এক লাখ টাকার শিম বিক্রি করতে পারবো।সুন্দরগঞ্জ বাজারের কাঁচামাল ব্যবসায়ী হামিদুল ইসলাম জানান, বর্তমান বাজারে প্রতি কেজি শিম ৮০ হতে ১০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। দেশীয় শিমের চাহিদা অনেক বেশি।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ রাশিদুল কবির জানান, আধুনিক পদ্ধতি ব্যবহার করে অল্প জমিতে একাধিক সবজি চাষাবাদ করা যায়। বর্তমানে অনেক কৃষক তা করে আসছে। উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সবজির চাষাবাদ অনেক ভাল হয়। বিশেষ করে তিস্তার চরাঞ্চল এখন সবুজে ভরে উঠছে।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা