বুধবার   ১৭ জুলাই ২০২৪ || ১ শ্রাবণ ১৪৩১

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত : ১৬:০৪, ৪ জুন ২০২৪

তারুণ্য ধরে রাখে হরিতকী

তারুণ্য ধরে রাখে হরিতকী
সংগৃহীত

হরিতকী আমাদের সকলের পরিচিত একটি ভেষজ উদ্ভিদ। হরিতকীর বৈজ্ঞানিক নাম টের্মিনেলিয়া চেব্যুলা (Terminalia chebula)। শত শত বছর ধরে এর ওষুধি গুণের কথা বলা হয়ে আসছে। প্রাচীন অনেক আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে এর গুণের কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

হরিতকী গাছ সাধারণত ৭০ থেকে ৮০ ফুট উঁচু হয়ে থাকে এবং এর পাতা ৩ থেকে ৪ ইঞ্চি লম্বা হয়ে থাকে। দেখতে অনেকটা জামরুলের ছোট পাতার মত । এর ফুল সাদা বা পিত বর্ণের উগ্র গন্ধ বিশিষ্ট এবং ফল ১ থেকে ১.৫ ইঞ্চি লম্বা ৫টি উন্নত শিরা বিশিষ্ট। কাঁচা অবস্থায় সবুজ এবং পেকে গেলে লাল হয়। ত্রিফলার অন্যতম একটি উপাদান হলো হরিতকী। হরিতকীর মধ্যে রয়েছে অলৌকিক ঔষধিগুণ।

ঔষধিগুণ:

১. হরিতকী তিতা স্বাদযুক্ত একটি ফল যা আমাদের মস্তিষ্ক ও স্নায়ুতন্ত্রের কার্যাবলি নিয়ন্ত্রণ ও ভারসাম্য রক্ষা করতে সাহায্য করে। তাই মস্তিষ্ক ও স্নায়ুবিক যেকোনো রোগে হরীতকী খুবই কার্যকর। হরীতকী রেচন, সঙ্কোচক, পিচ্ছিলকারক, পরজীবীনাশক, মাংসপেশির সঙ্কোচক প্রতিরোধক এবং স্নায়ুবিক দুর্বলতা প্রতিরোধী গুণসম্পন্ন একটি ফল।

২. হরিতকী কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে দারুণ কার্যকর। এজন্য ৫-৬ গ্রাম হরিতকীর খোসা গুঁড়ো করে এর সাথে সমপরিমাণ চিনি মিশিয়ে রাতে গরম পানি দিয়ে খেলে উপকার পাওয়া যাবে। এছাড়াও এটি আমাদের হজম শক্তি বৃদ্ধি ও পেট ফাঁপা রোগ উপশম করে।

৩. কাঁচা হরিতকীর রস আয়ু, বল ও যৌন শক্তি বৃদ্ধি করে এবং একই সাথে আমাদের বার্ধক্যজনিত সমস্যা কমায় । প্রতিদিন একটি করে হরিতকী খেলে চুল পড়া রোধ হয় এবং চুল ঘন ও সবসময় কালো থাকবে। একইসঙ্গে এটি দাঁত ও চোখের জন্য উপকারী।

৪. হরিতকী ফল আমাদের রক্তকে পরিষ্কার করে। রক্তে মিশে থাকা বিভিন্ন রকম বর্জ্য শরীর থেকে বের করে দেয় । ফলে আমাদের রক্ত যেমন পরিষ্কার থাকে তেমনি শরীর থাকে দূষণ মুক্ত।

৫. হরিতকী ফল আমাদের মানবদেহের রোগ প্রতিরোধী শক্তি বৃদ্ধি করে। এছাড়াও জ্বর, কৃমি, আমাশয়, সাধারণ শারীরিক দুর্বলতা এবং বায়ু আধিক্যে এটি অত্যন্ত উপকারী। হরিতকী ফল সিদ্ধ করে এর ক্লাথ ক্ষতস্থানে লাগিয়ে দিলে ঘা-পাঁচড়া জাতীয় রোগ দূর হয়।

সূত্র: ডেইলি বাংলাদেশ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়

সর্বশেষ