বৃহস্পতিবার   ১৮ জুলাই ২০২৪ || ২ শ্রাবণ ১৪৩১

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত : ১১:০৩, ১৯ জুন ২০২৪

স্ত্রীর জন্মদিন ভুলে গেলে পরিস্থিতি সামলাবেন যেভাবে

স্ত্রীর জন্মদিন ভুলে গেলে পরিস্থিতি সামলাবেন যেভাবে
সংগৃহীত

স্ত্রীর জন্মদিন কিংবা বিবাহবার্ষিকীর তারিখ ভুলে গেলে সংসারে শুরু হয় অশান্তি। দাম্পত্যে এসব দিনক্ষণ ভুলে গেলে অভিমান জমতে জমতে পরিণত হতে পারে আগ্নেয়গিরিতে। কীভাবে সামলাবেন পরিস্থিতি?

অফিসে কোনো দিন কার সঙ্গে মিটিং, বাড়িতে ফেরার সময়ে বাজার থেকে কোন জিনিসগুলো নিয়ে যেতে হবে কিংবা আলমারির চাবিটা কোন জায়গায় রেখেছেন— মাঝেমধ্যেই এই ছোট ছোট জিনিসগুলো মনে পড়ে না অনেকের। একটা সময়ে ধারণা ছিল, বয়স বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গেই কমে স্মৃতির দৌড়। কিন্তু আধুনিক জীবনধারার চাপ সে তথ্যকে কেবল বইয়ের পাতায় আটকে রেখেছে। 

এখন অল্পবয়সীদের মধ্যেও ভুলে যাওয়ার সমস্যা বেশ ভালো মতোই দেখা যাচ্ছে। কারণটা হতে পারে অত্যধিক মানসিক চাপ। এই সমস্যার কারণে স্ত্রীর জন্মদিন কিংবা বিবাহবার্ষিকীর তারিখ ভুলে গেলে কিন্তু সংসারে শুরু হয় অশান্তি। 

দাম্পত্যে এসব দিনক্ষণ ভুলে গেলে অভিমান জমতে জমতে পরিণত হতে পারে আগ্নেয়গিরিতে। একটা ছোট ভুলের কারণে সম্পর্কের তিক্ততাও বেড়ে যায় কয়েক গুণ। এমন ভুল করেও সম্পর্ক মধুর রাখতে চাইলে উদ্যোগী হতে হবে আপনাকেই। 

জেনে নিন, প্রিয়জনের মান ভাঙাতে কী কী করতে পারেন।

ভুল স্বীকার করে নিলেই মঙ্গল

বিশেষ দিনক্ষণ ভুলে যাওয়া অন্যায় না হলেও ভুল তো বটেই! আর ভুল করলে কোনো অজুহাত না দেখিয়ে তা স্বীকার করে নেয়া ভালো। প্রিয়জনকে বুঝতে দিন যে, আপনি নিজের ভুলের জন্য কতটা অনুতপ্ত।

আলোচনায় মিটমাট

আপনি হয়ত বিশেষ দিনটি কোনো কারণে ভুলে গিয়েছেন, তবে যে মানুষটি সারা দিন আপনার শুভেচ্ছা, ভালোবাসা পাওয়ার অপেক্ষায় ছিলেন, তার দিকটাও তো ভাবতে হবে! তাকেও আবেগ প্রকাশের সুযোগ দিতে হবে। তার অভিযোগগুলোও মাথা পেতে শুনতে হবে। এখানেই শেষ নয়, তাকে আশ্বস্ত করুন, তিনি আপনার কাছে সত্যিই গুরুত্বপূর্ণ।

সময় নিন

সম্পর্কে অনেক সময় উনিশ-বিশ হলেও ভুল স্বীকার করে, দুজনে খোলামেলা আলোচনা করে নিলেই কিন্তু মুশকিল আসান হয়ে যায়। তবে সঙ্গী খুব বেশি রেগে থাকলে কথোপকথনের জন্য খানিক ক্ষণ সময় নিন। তার পর সময় বুঝে ইতিবাচক কথোপকথন, একান্তে সময় কাটানো, যত্ন কিংবা উপহার দিয়ে পরিস্থিতি সামাল দিতে পারেন সহজেই।

বিশেষ উপহার

হয়ত আপনি বিশেষ দিনটির কথা মনে রাখতে পারেননি। তবে যখনই মনে পড়ল, চটজলদি একটা আয়োজন সেরে ফেলতেই পারেন। যেমন নিজের হাতে লেখা একটি চিঠি, গোলাপ ফুল, চকোলেট বা এমন কোনও বিশেষ জিনিস তাকে উপহার দিন, যাতে তার আগ্রহ রয়েছে। আপনার ছোট ছোট প্রচেষ্টাগুলিই তাঁর কাছে বড় ব্যাপার হতে পারে। একই সঙ্গে এ ঘটনা যাতে দ্বিতীয় বার না ঘটে, সে দিকেও চেষ্টা করুন। প্রয়োজনে ফোনে রিমাইন্ডার দিয়ে রাখুন।

বড় চমক

বিশেষ দিনটি ভুলে যাওয়ার ক্ষতিপূরণ হিসেবে সঙ্গীকে তার পছন্দের জায়গায় নিয়ে যেতে পারেন। সেখানে তার পছন্দের রেস্তরাঁয় খাওয়াদাওয়া সেরে না হয় একটা ‘লং ড্রাইভে’ বেরিয়ে পড়লেন। সেই দিনটা এভাবে কাটিয়ে সপ্তাহান্তে সঙ্গীকে নিয়ে দু-দিন কাছেপিঠে কোথাও ঘুরে এলেন। একান্তে সময় কাটানোটাও তো দুজনের কাছে ভীষণ দামি।

 

সূত্র: ডেইলি বাংলাদেশ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়

সর্বশেষ