• শনিবার   ১০ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২৫ ১৪২৯

  • || ১৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

চিতল মাছের কোফতা

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২  

মাছের কোফতার সঙ্গে যদি এক প্লেট গরম ভাত হয়- পেট পুরে খেতে পারে বাঙালি। এমনিতেই মাছের সঙ্গে ভাতের একটা গভীর সম্পর্ক আছে। কোফতার ঘ্রাণ খাবার গ্রহণের ইচ্ছা আরো বাড়িয়ে দেয়। আজকের রেসিপি চিতল মাছের কোফতা।

উপকরণ: চিতল অথবা যেকোনো বড় মাছের  টুকরা পাঁচটি। ময়দা পাঁচ টেবিলচামচ। ব্রেডক্রাম্ব দুই টেবিল চামচ। একটি বড় আলুসিদ্ধ। তেল চার টেবিল চামচ। পেঁয়াজবাটা দুই টেবিল চামচ। পেঁয়াজকুচি আধা কাপ। আদাবাটা আধা চা চামচ। রসুনবাটা সিকি চা চামচ। লবণ স্বাদ মতো। লালমরিচ গুঁড়া দেড় চা চামচ। হলুদগুঁড়া আধা চা চামচ। ধনিয়া গুঁড়া এক চা চামচ। জিরাগুঁড়া সিকি চা চামচ। গরম মসলার গুঁড়া সামান্য। টমেটো-কুচি আধা কাপ। নারিকেল দুধ এক কাপ। কাঁচামরিচ চারটি। চিনি সামান্য।

প্রণালী: মাছ ধুয়ে তাতে সামান্য লবণ, হলুদগুঁড়া, আদা ও রসুন বাটা এবং এক কাপের মতো পানি দিয়ে সিদ্ধ করে নিন। অন্যদিকে আলু সিদ্ধ করে তুলে রাখুন। মাছ সিদ্ধ হলে পানি থেকে তুলে মাছের কাঁটা বেছে নিন। মাছে যেন কোনো পানি না থাকে। নাহলে কোফতা খুলে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। দরকার পড়লে মাছ তুলে হালকা হাতে টিস্যু দিয়ে মুছেও নিতে পারেন। এবার মাছের সঙ্গে আলুসিদ্ধ, স্বাদ মতো লবণ, কাঁচামরিচ মিহিকুচি, ময়দা, ব্রেডক্রাম্ব ও একটু তেল  মিশিয়ে কোফতা বানিয়ে নিন। প্যানে পরিমাণ মতো তেল দিয়ে আস্তে আস্তে ভেজে সব কোফতা তুলে রাখুন।

অন্য কড়াইতে তেল গরম হলে- পেঁয়াজকুচি বাদামি করে ভেজে তাতে পেঁয়াজবাটা, আদা ও রসুন বাটা, মরিচগুঁড়া, হলুদগুঁড়া, ধনিয়াগুঁড়া, টমেটো কুচি ও স্বাদ মতো লবণ দিয়ে দিন। এবার সামান্য পানিসহ মসলা  কষিয়ে নিন। মশলা থেকে তেল ছেড়ে আসলে পরিমাণ মতো পানি ও নারিকেল দুধ দিয়ে কোফতাগুলো ঢেলে দিন। খেয়াল রাখবেন চুলার আঁচ মাঝারি থাকবে। কোফতাগুলো বার বার চামচ দিয়ে নাড়বেন না। তাহলে ভেঙে যাবে। বরং কড়াই ধরে নেড়ে দেবেন।

কোফতা ১০ মিনিট ঢাকনা দিয়ে রেখে দিন। তারপর ঢাকনা তুলে সব স্বাদ ঠিক আছে কিনা দেখে এ পর্যায়ে জিরাগুঁড়া, গরম মসলার গুঁড়া, কাঁচামরিচ ফালি, সামান্য চিনি আর আধা চা চামচের মতো ঘি দিয়ে পাঁচ মিনিট দমে রাখুন। কোফতা চাইলে মাখা মাখা করতে পারেন আবার ঝোল ঝোল নিজের ইচ্ছে। নামিয়ে সাদা ভাতের সঙ্গে গরম গরম পরিবেশন করুন ।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা