• শনিবার   ০৮ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ২২ ১৪২৯

  • || ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

চলতি বছর থেকেই ট্রেন চালাবেন সৌদি নারীরা

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২  

কট্টর ইসলামপন্থী দেশ হিসেবে পরিচিত সৌদি আরবে চলতি বছরই উচ্চগতির ট্রেন চালাবেন নারীরা। দেশটির রেল বিভাগের এক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা সৌদি টেলিভিশন চ্যানেল আল এখবারিয়াকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

২০১৮ সাল থেকে সৌদি আরবে মক্কা-মদিনা-জেদ্দা রুটে চালু হয়েছে উচ্চগতিসম্পন্ন হারামিয়াম ট্রেন। চলতি বছরের শুরু দিকে সেই ট্রেনে নারী ড্রাইভার নিয়োগের সিদ্ধান্ত নেয় দেশটির সরকার।

সেই অনুযায়ী চলতি বছর ফেব্রুয়ারি নারী ট্রেনচালক নিয়োগের প্রজ্ঞাপন (সার্কুলার) জারি করে রেল বিভাগ। সেই প্রজ্ঞাপনে সাড়া দিয়ে ২৮ হাজারেরও বেশি নারী আবেদন করেছিলেন।

হারামিয়াম ট্রেন পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে আছে স্পেনভিত্তিক কোম্পানি রেনফে। আবেদনকারীদের মধ্যে থেকে যোগ্যতম ৩০ জন প্রার্থীকে বাছাই ও তাদের প্রশিক্ষণের দায়িত্বও ছিল রেনফের ওপর।

কয়েক দফায় পরীক্ষা গ্রহণের ভিত্তিতে চলতি বছর আগস্টে চুড়ান্ত ৩০ জন প্রার্থীকে বাছাই করে রেনফে।

সৌদি রেল দপ্তরের উপ নির্বাহী কর্মকর্তা রায়ান আল হারবি শনিবার আল এখবারিয়া টেলিভিশন চ্যানেলকে বলেন, ‘যে ৩০ জন প্রার্থীকে বাছাই করা হয়েছিল, তাদের প্রশিক্ষণ চলছে। আমরা আশা করছি, ২০২২ সালের শেষ দিকে আমরা মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে দ্রুতগামী এই ট্রেনের চালকের আসনে নারীদের দেখতে পাব।’

তিনি আরও জানান, প্রশিক্ষণে থাকা এই নারী ড্রাইভারদের সবাই সৌদি আরবের নাগরিক।

মক্কা-মদিনা-জেদ্দা রুটের দৈর্ঘ প্রায় ৪৫০ কিলোমিটার। ৫টি স্টেশন আছে এই রুটটিতে। প্রতিবছর প্রায় ৬ কোটি মানুষ এই ট্রেনে যাতায়াত করেন।

সম্প্রতি সৌদি আরব নারীদের কর্মসংস্থান ও ক্ষমতায়নের ওপর গুরুত্ব দিচ্ছে। এর অনেকখানি কৃতত্ব দেশটির যুবরাজ ও ডি ফ্যাক্টো নেতা মোহাম্মদ বিন সালমানের।

২০১৭ সালে দেশের যুবরাজ হন মোহাম্মদ বিন সালমান। তার পরের বছর ২০১৮ সালে সৌদি আরবের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতি দেয় দেশটির সরকার।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা