• বুধবার   ২৯ জুন ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১৪ ১৪২৯

  • || ২৭ জ্বিলকদ ১৪৪৩

অনিয়মিত মাসিকের সমস্যা সমাধান করবে যে পানীয়!

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ২৩ ডিসেম্বর ২০২১  

অনিয়মিত মাসিকের সমস্যায় যে কোনো বয়সের নারীই ভুগতে পারেন। বিশেষ করে বর্তমান এ সময়ে অনিয়মিত জীবন-যাপন, ওজন বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন কারণে এ সমস্যা আরও বাড়তে পারে। অনিয়মিত মাসিকের কারণে সন্তান ধারণে সমস্যা হতে পারে। একই সঙ্গে পিসিওএস, ডায়াবেটিসসহ বিভিন্ন রোগও শরীরে বাসা বাঁধতে পারে।

যদি ওজন বেড়ে যাওয়া আর অনিয়মিত মাসিকের সমস্যা একই সময়ে শুরু হয়, তাহলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। পলিসিস্টিক ওভারিয়ান সিনড্রোমের ক্ষেত্রে এমনটা হতে পারে। বিশেষজ্ঞদের মতে, যে কোনো হরমোনের স্তরে পরিবর্তন ঘটলেও পিরিয়ডের সাইকেলে পরিবর্তন ঘটে।

আবার থাইরয়েড হরমোনের ভারসাম্যহীনতা, ধূমপান ও অ্যালকোহল সেবন, ওষুধ, জন্মনিয়ন্ত্রণ ওষুধ খাওয়ার কারণও এ সমস্যার জন্য দায়ী হতে পারে। এ বিষয়ে আয়ুর্বেদ বিশেষজ্ঞরা কী বলছেন?এ বিষয়ে ভারতীয় আয়ুর্বেদ বিশেষজ্ঞ ডা. দীক্ষা ভাবসার তার ইনস্টাগ্রামে দুটি বিশেষ পানীয় সম্পর্কে জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, আপনি যদি পিরিয়ডের সমস্যায় ভুগে থাকেন, তাহলে তিল ও গুড় দিয়ে তৈরি একটি ভেষজ পানীয় সেবন করতে পারেন। পিরিয়ড শুরুর আগে নিয়মিত এক সপ্তাহ এই পানীয় পান করলেও দেখবেন নির্দিষ্ট সময়ে মাসিক হবে।

কীভাবে তিল ও গুড় ভেষজ পানীয় তৈরি করবেন?

এজন্য প্রয়োজন- ১ টেবিল চামচ সাদা বা কালো তিল, ১ চা চামচ হলুদ ও ১ চা চামচ শুকনো আদার গুঁড়ো। পানীয়টি তৈরি করতে প্রথমে একটি পাত্রে এক গ্লাস জল ঢেলে সব উপকরণ মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি অর্ধেক না হওয়া পর্যন্ত চুলায় জ্বাল দিন। সবশেষে এক চামচ গুড় মিশিয়ে পান করুন তিল-গুড়ের বিশেষ পানীয়।

ডা. দীক্ষার মতে, তিল-গুড়ের পানীয় ছাড়াও আরও একটি পানীয় পান করতে পারেন। সেটি হলো ধনে ও মৌরির পানীয়। এটি তৈরি করতে ১ চা চামচ আস্ত ধনে, ১ চা চামচ মৌরি ও কয়েকটি কিসমিস সারারাত ভিজিয়ে রাখুন।

সকালে এক কাপ পানির সঙ্গে ফুটিয়ে নিন। তারপর পান করুন। এটি খেলেও নিয়মিত পিরিয়ড হয়। এমনকি পিরিয়ডে যাদের বেশি রক্তক্ষরণ হয় তাদের জন্যও বেশ উপকারী এই পানীয়।আপনিও যদি অনিয়মিত মাসিকের সমস্যায় ভুগছেন, তাহলে অবশ্যই আয়ুর্বেদিক বিশেষজ্ঞদের দ্বারা নির্ধারিত দুটি প্রাকৃতিক ভেষজ পানীয় ব্যবহার করে দেখুন। অনেক বিশ্রাম পাবেন।

সতর্কতা: এই দু’টি পানীয় তৈরির সব উপকরণই প্রাকৃতিক। তাই এসব উপদানের ব্যবহারে শরীরে কোনো ধরনের ক্ষতিকর প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা নেই। তবে যদি এসব উপকরণের মধ্যে কোনোটি আপনার শরীরে অ্যালার্জির কারণ হতে পারে, তাহলে এসব পানীয় এড়িয়ে চলবেন।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা