• শনিবার   ২১ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৬ ১৪২৯

  • || ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩

কৃষি খাতের উন্নয়নে বাংলাদেশ-কানাডা যৌথ উদ্যোগ

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ১২ মে ২০২২  

বাংলাদেশের কৃষি খাতের উন্নয়নে কানাডার সাস্কাচুয়ান বিশ্ববিদ্যালয় এবং কৃষি মন্ত্রণালয় যৌথভাবে কাজ করছে। ইতোমধ্যে কৃষি মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে কানাডার সাস্কাচুয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্লোবাল ইনস্টিটিউট ফর ফুড সিকিউরিটিতে (জিআইএফএস) বঙ্গবন্ধু চেয়ার স্থাপন করা হয়েছে। কানাডা ও বাংলাদেশের কৃষি গবেষকদের মধ্যে সহযোগিতা বৃদ্ধির জন্য ঢাকায় বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল (বিএআরসি) চত্বরে জিআইএফএস এর আঞ্চলিক অফিস চালু হয়েছে। এছাড়া গাজীপুরে বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট চত্বরে বঙ্গবন্ধু-পিয়ারে ট্রুডো কৃষিপ্রযুক্তি কেন্দ্র স্থাপনের কাজ চলছে।

এসব কাজের অগ্রগতি দেখতে সম্প্রতি সাস্কাচুয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ের চার সদস্যের প্রতিনিধি দল ঢাকা সফর করেন। প্রতিনিধি দলের সদস্য সাস্কাচুয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্লোবাল ইনস্টিটিউট ফর ফুড সিকিউরিটির (জিআইএফএস) পরিচালক স্টিফেন ভিশার, সাস্কাচুয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-প্রেসিডেন্ট (গবেষণা) ড. বালজিৎ সিং, বঙ্গবন্ধু রিসার্চ চেয়ার ড. এন্ড্রু শার্প এবং ঢাকায় নিযুক্ত কানাডার হাই কমিশনার লিলি নিকোলস প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে গত ৮ মে প্রধানমন্ত্রীর সরকারী বাসভবন গণভবনে সাক্ষাত করেন।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাস্কাচুয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু চেয়ার স্থাপন করায় কানাডা সরকারকে ধন্যবাদ জানান ও বঙ্গবন্ধু রিসার্চ চেয়ার হিসেবে নিয়োগ পাওয়ায় ড. এন্ড্রু শার্পকে অভিনন্দন জানান। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু-পিয়ারে ট্রুডো কৃষিপ্রযুক্তি কেন্দ্রকে আন্তর্জাতিক মানের সেন্টারে উন্নীত করা হবে, যেখানে বিশ্বের অন্য দেশের বিজ্ঞানীরাও গবেষণা করতে পারবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের আগে থেকেই বাংলাদেশ ও কানাডার মধ্যে সম্পর্কের সূচনা হয়। এ সময় তিনি ১৯৭০ সালের ৭ ডিসেম্বর, সাধারণ নির্বাচনে বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ নিরঙ্কুশভাবে বিজয়ী হলে- কানাডার তৎকালীন ট্রুডো সরকার কর্তৃক পাকিস্তানের ক্ষমতাসীন সরকারকে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের হাতে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের যে অনুরোধ জানানো হয়েছিল, সেকথা কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন। তিনি বলেন, ‘কানাডা সরকার আমাদের মুক্তিযুদ্ধের সময় আমাদের প্রতি তাদের সমর্থন অব্যাহত রাখে। স্বাধীনতার পর যে কয়েকটি দেশ বাংলাদেশকে তাৎক্ষণিকভাবে স্বীকৃতি দেয়, কানাডা (১৯৭২ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি) তাদের অন্যতম।’

বৈঠককালে স্টিফেন ভিশার বলেন, তারা জিআইএফএস এর ঢাকার আঞ্চলিক অফিসকে সব ধরনের কারিগরি সহায়তা দেবেন। ড. বালজিৎ সিং বলেন, পাশাপাশি উচ্চ শিক্ষার জন্য কেউ সাস্কাচুয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ে গেলে, তারা তাকে সর্বাত্মক সহায়তা প্রদান করবেন। প্রতিনিধি দলটি বাংলাদেশের কাঁঠালের বছরব্যাপী উৎপাদন ও বহুমুখী ব্যবহার নিয়েও কাজ করতে আগ্রহ প্রকাশ করে।

বঙ্গবন্ধু চেয়ার স্থাপন ॥ কৃষি মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে কানাডার সাস্কাচুয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্লোবাল ইনস্টিটিউট ফর ফুড সিকিউরিটিতে (জিআইএফএস) গত ডিসেম্বরে বঙ্গবন্ধু চেয়ার স্থাপন করা হয়েছে। ইতোমধ্যে বঙ্গবন্ধু রিসার্চ চেয়ার নিয়োগসহ সকল বিষয় সম্পন্ন হয়েছে। জিআইএফএসের জিনোমিকস ও বায়োইনফরমেটিকসের পরিচালক ড. এ্যান্ড্রু শার্পকে বঙ্গবন্ধু রিসার্চ চেয়ার হিসেবে নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে।

এ চেয়ারের আওতায় বাংলাদেশের জাতীয় কৃষি গবেষণা সিস্টেমভুক্ত (এনএআরএস) প্রতিষ্ঠানসমূহের চাহিদা অনুযায়ী সমসাময়িক বিষয়ের ওপর এনএআরএসের গবেষকরা পিএইচডি এবং পোস্ট-ডক্টরাল গবেষণা করার সুযোগ পাবেন। তাছাড়া, এই চেয়ারের মাধ্যমে বাংলাদেশ এবং কানাডার কৃষি গবেষকদের মধ্যে গবেষণা, উন্নত জ্ঞান ও প্রযুক্তি বিনিময় ও সহযোগিতা বিষয়ে সম্পর্ক স্থাপিত হবে ও এটি অব্যাহত থাকবে।

ঢাকায় জিআইএফএসের আঞ্চলিক অফিস চালু ॥ কানাডা ও বাংলাদেশের কৃষি গবেষকদের মধ্যে সহযোগিত বৃদ্ধির জন্য ঢাকায় বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল (বিএআরসি) চত্বরে জিআইএফএসের আঞ্চলিক অফিস চালু হয়েছে। গত ডিসেম্বরে এ অফিসের উদ্বোধন করেন কৃষিমন্ত্রী ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক এমপি।

বঙ্গবন্ধু-পিয়ারে ট্রুডো কৃষিপ্রযুক্তি কেন্দ্র স্থাপন ॥ বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধু-পিয়ারে ট্রুডো কৃষিপ্রযুক্তি কেন্দ্র স্থাপনের কাজ চলছে। গাজীপুরে বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট চত্বরে এ সেন্টার স্থাপিত হচ্ছে। এটি বাস্তবায়নে জিআইএফএস-কানাডা বাংলাদেশকে কারিগরি সহায়তা প্রদান করবে। কৃষিক্ষেত্রে সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ও অগ্রসর গবেষণার বিষয়ে এখানে কাজ হবে।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা