• শনিবার   ১০ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২৫ ১৪২৯

  • || ১৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

সাগরে ধরা পড়লো ‘কিং চান্দা’, ৯৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি!

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ৬ অক্টোবর ২০২২  

পটুয়াখালীর কুয়াকাটার পশ্চিম দিকে মাছের বাজার। সেই মাছের বাজারে একটি বিরল প্রজাতির মাছ বিক্রি করতে দেখা গেছে। মাছটি বাজারে নিয়ে আসলে কুয়াকাটায় আগত পর্যটক ও স্থানীয় বাসিন্দারা মাছটি দেখতে ভীড় করেন।

জানা যায়, কয়েকদিন আগে পটুয়াখালীর কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে এক জেলের জালে ধরা পড়েছে বিরল ২ কেজি ৭০০ গ্রামের একটি ‘কিং চান্দা’ মাছ। মাছটির গায়ের রঙ হালকা খয়েরী, মুখের অংশ ছোট, সামনের দুটি বড় বড় চোখ রয়েছে। মাছটি লেজ দেখে বুঝা যায় যে শরীরর থেকে বের হয়ে আছে। শরীর বেশ পুরু আর পেছনের দিকটা দেখতে কোদাল বা বেলচার মতো।

মাছটি ফ্রাই মার্কেটে নিয়ে আসা হলে সেখানের ব্যবসায়ী বশির ৮৫০ টাকা কেজি দরে কিনে নেন।

স্থানীয় জেলেরা জানায়, দুই দিন আগে এক জেলের জালে মাছটি ধরা পড়ে। আজ সকালে মাছটি বাজারে নিয়ে আসলে বশির নামের একজন স্থানীয় মাছ ব্যবসায়ী ৮৫০ টাকা কেজি দরে মাছটি কিনে নেন। পরে ব্যবসায়ী বশির ৯৫০ টাকা কেজি দরে মাছটি এক পর্যটকের কাছে বিক্রি করেন। বিগত তিন বছর যাবত এই এলাকায় এমন মাছ দেখা যায়নি। তাই মাছটি দেখতে অনেক মানুষ ভীড় করেছেন।

বরিশাল মৎস্য অধিদপ্তরের সাসটেনেবল কোষ্টাল অ্যান্ড মেরিন ফিশারিজ প্রকল্পের উপ-প্রকল্প পরিচালক ও সামুদ্রিক প্রাণি বিশেষজ্ঞ কামরুল ইসলাম জানান, এ মাছের বৈজ্ঞানিক নাম প্যালাটাক্স তেইরা। লম্বা লেজযুক্ত এ মাছকে বাদুর মাছ বা লংফিন ব্যাট ফিস বলে বা লং ফিন স্পেড ফিস বলে (কোদাল মাছ)। এই প্রজাতির মাছ পশ্চিম অস্ট্রেলিয়া, মান্নার সাগর, ভারত মহাসাগর ও বঙ্গোপসাগরে পাওয়া যায়। যার ওজন ১০-১২ কেজি পর্যন্ত হয়ে থাকে।

কলাপাড়া সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা অপু সাহা জানান, এই প্রজাতির মাছ খুবই বিরল। আমাদের অঞ্চলে এই প্রজাতির মাছের দেখা পাওয়া দুষ্কর। শুনেছি এক পর্যটকের কাছে মাছটি বিক্রি করা হয়েছে।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা