• মঙ্গলবার   ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ১২ ১৪২৮

  • || ১৮ সফর ১৪৪৩

পথচারীদের হাঁটাকে সহজ করে দিচ্ছে ডিএনসিসি

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ১৭ জানুয়ারি ২০২১  

ঢাকার রাস্তায় পথচারীদের হাঁটাকে সহজ করে দিতে বেশ কিছু প্রকল্প হাতে নিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি)। এজন্য ডিএনসিসি আওতাধীন গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলোতে নতুন করে আরো ৩৬টি ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ করা হবে।

ডিএনসিসি বলছে, উত্তরের বিভিন্ন সড়কে থাকা আরো ৪৭টি ফুটওভার ব্রিজ আধুনিকায়ন করা হবে। নতুনসহ মোট ৮টিতে বিদ্যুৎচালিত সচল সিঁড়ি রাখা হবে। এর ফলে এসব উড়াল সেতুতে শিশু, বৃদ্ধ ও প্রতিবন্ধী মানুষেরা সহজে যাতায়াত করতে পারবে।

জানা গেছে, ৮টি ওভারব্রিজে মোট ১৬টি এস্কেলেটর থাকবে। এছাড়াও যাত্রীদের নিরাপত্তার জন্য সড়কে নতুন করে ৫০টি ছাউনিও নির্মাণ করা হবে। পাশাপাশি ৭ দশমিক ৭৪ কিলোমিটার সড়ক মিডিয়ানে উন্নয়ন করে মিডিয়ান ও ফুটপাতের সাইডে ৪৫টি গ্রিলের বেড়া দেয়া হবে।

এ বিষয়ে ডিএনসিসি মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, উত্তরের সড়কগুলোতে পথচারীদের নিরাপত্তা আমাদের কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। পায়ে হাঁটা পথকে আরো সহজ করতে হলে ঢাকাকে আধুনিকায়ন করতে হবে। এজন্য নতুন করে ৩৬টি ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ করা হবে। যার ৮টিতে থাকবে সচল সিঁড়ি। সচল সিঁড়িগুলো বিভিন্ন হাসপাতাল ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানের সামনে থাকবে বলেও তিনি জানান।

এদিকে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল ও হার্ট ফাউন্ডেশনের সামনে সচল সিঁড়ি বসানো ফুটওভার ব্রিজ করার সিদ্ধান্ত এরই মধ্যে হয়ে গেছে। এছাড়া অন্যান্য স্থানগুলো হলো কাকলী, শাহীন কলেজ, শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল, আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজ, সিএমএইচ হাসপাতাল, শ্যামলী ইন্টারসেকশন, মহাখালী ফুটওভার ব্রিজ অঞ্চল-৩ ও প্রগতি সরণি ইস্ট-ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয় ফুটওভার ব্রিজে দুটি করে মোট ১৬টি চলন্ত সিঁড়ি স্থাপন করা হবে। এসব এলাকায় হাসপাতাল ছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন অফিস রয়েছে।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, ট্রাফিক সমীক্ষা প্রতিবেদন এবং জনসাধারণের চাহিদা বিবেচনা করে ফুটওভার ব্রিজে এস্কেলেটর স্থাপনের স্থান নির্বাচন করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ‘ডিএনসিসি এলাকার ট্রাফিক অবকাঠামো উন্নয়নসহ সড়ক নিরাপত্তা’ প্রকল্পের আওতায় এসব উন্নয়ন করা হচ্ছে। এই প্রকল্পটি ৩১৯ কোটি টাকা ব্যয়ে চলতি সময় থেকে ২০২৩ মেয়াদে বাস্তবায়ন করা হবে। এর আওতায় সব মিলিয়ে ডিএনসিসির আওতাধীন ১৩ দশমিক ৬৮ কিলোমিটার সড়ক উন্নয়ন, ৯ কিলোমিটার পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা এবং সাড়ে ২৬ কিলোমিটার ফুটপাত উন্নয়ন করা হবে।

উল্লেখ্য, ৩৬টি ফুটওভার ব্রিজ যেসব স্থানে বসবে সেই স্থানগুলো হলো- কুড়িল চৌরাস্তা, মাস্টার মাইন্ড স্কুল, গাউছুল আজম অ্যাভিনিউ, লুবানা হাসপাতাল, গরিবে নেওয়াজ অ্যাভিনিউ, গাউছুল আজম অ্যাভিনিউ পূর্ব, মাইলস্টোন কলেজ উত্তরা, বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজ সিরামিক রোড, প্রশিকা ক্রসিং মিল্ক ভিটা রোড, শিয়ালবাড়ী মোড়, মিরপুর সিরামিক রোড পেট্রোল পাম্পের পাশে, মিরপুর আইডিয়াল গার্লস ল্যাবরেটরি ইনস্টিটিউট, পুলিশ স্টাফ কলেজ, নাবিস্কো ফ্যাক্টরির সামনে, বিজি প্রেস উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে, মহাখালী ডিএনসিসি অঞ্চল-৩ অফিসের সামনে, মহাখালী ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে, নেভাল হেডকোয়ার্টার সংলগ্ন এয়ারপোর্ট রোড, এয়ারপোর্ট রোড আর্মি স্টেডিয়ামের সামনে।

এছাড়াও ফুটওভার ব্রিজ বসবে গুলশান-১ মসজিদের সামনে, গুলশান-২ আজাদ মসজিদের সামনে, গুলশান-১ শুটিং ক্লাবের সামনে, কোকাকোলা মোড়, প্রগতি সরণি শাহজাদপুর, মেরুল বাড্ডা বৌদ্ধ মন্দিরের পাশে, প্রগতি সরণি সড়কের রামপুরা ব্রিজের সামনে, টেকনিক্যাল ক্রসিং, মাজার রোড, রজনীগন্ধা সুপার মার্কেট কচুক্ষেত, ৬০ ফুট মনিপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজ, মিরপুর রোড শ্যামলী ইন্টার সেকশন, সাতমসজিদ রোড গ্রাফিক্স কলেজের সামনে, রিং রোড আদাবর থানার পাশে, মোহাম্মদপুর বাসস্ট্যান্ড, মোহাম্মদপুর রিং রোড শিয়া মসজিদ ক্রসিং, মোহাম্মদপুর সূচনা কমিউনিটি সেন্টারের পাশে ও বসিলা রোড বেড়িবাঁধ বাঁশবাড়ি সড়কে।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা