• বৃহস্পতিবার   ০৬ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২১ ১৪২৭

  • || ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

১৩

হংকং ছাড়ছে টিকটক

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ৮ জুলাই ২০২০  

চীনের বিতর্কিত জাতীয় নিরাপত্তা আইন জারির পরপরই হংকংয়ে কার্যক্রম বন্ধ করার ঘোষণা দেয় টিকটক। টিকটকের মূল প্রতিষ্ঠান বেইজিংভিত্তিক স্টার্টআপ কোম্পানি বাইটড্যান্স ঠিক কবে হংকং ছাড়ছে সে সিদ্ধান্ত এখনো চূড়ান্ত হয়নি।

কার্যক্রম বন্ধ হলে হংকংয়ে টিকটকের বর্তমান ব্যবহারকারীদের কি হবে সে ব্যাপারেও মুখ খোলেনি কর্তৃপক্ষ।

চীন ও তাদের মূল প্রতিষ্ঠান থেকে নিজেদের দূরে রাখার উদ্দেশ্যেই টিকটকের এমন সিদ্ধান্ত। টিকটকের একটি চাইনিজ সংস্করণ রয়েছে, যা ডুইয়ান নামে পরিচিত। হংকংয়ের ব্যবহারকারীরা ডুইয়ান ব্যবহার করতে পারবেন কিনা সেটাও জানায়নি বাইটড্যান্স।

সম্প্রতি মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও তার দেশে টিকটকসহ অন্যান্য চাইনিজ সামাজিক যোগাযোগ অ্যাপ নিষিদ্ধের পরিকল্পনার কথা জানান। এ ঘোষণার পরপরই টিকটক তাদের পক্ষ থেকে মার্কিন সরকারকে আশ্বস্ত করার জন্য কিছু বক্তব্য প্রচার করে।

টিকটকের বর্তমান সিইও একজন মার্কিন নাগরিক, পাশাপাশি টিকটকে রয়েছে শতাধিক মার্কিন কর্মী। টিকটক কখনই চীন সরকারের কাছে এর ব্যবহারকারীদের তথ্য প্রদান করেনি বলেও দারি করেন তারা।

ভবিষ্যতে চীন সরকার এমনটি চাইলেও তারা করবে না বলে তাদের পরিকল্পনা জানান। তারা আরও জানান, টিকটকের সব তথ্য কেন্দ্র চীনের বাইরে অবস্থিত এবং টিকটকের কোন তথ্যই চীন সরকারের আইনের আওতাভুক্ত নয়।

ফেসবুক, গুগল ও টুইটারের কাছে হংকং সরকার ব্যবহারকারীর তথ্য চাইলে তারা তথ্য প্রদানে অস্বীকৃতি জানানোর পরপরই টিকটক হংকং ছাড়ার পরিকল্পনা ঘোষণা করে।

টিকটকের একজন মুখপাত্র জানান, হংকং তুলনামূলকভাবে টিকটকের খুব ছোট একটি বাজার। যদিও তিনি নির্দিষ্ট করে ব্যবহারকারীর সংখ্যা উল্লেখ করেননি।

অন্যদিকে ২০১৬ সালে কার্যক্রম শুরুর পর আমেরিকাসহ পশ্চিমা দেশগুলোতে জনপ্রিয় হয়ে উঠে টিকটক। চলতি বছরের প্রথম তিন মাসে ৩১৫ মিলিয়ন ডাউনলোড হয়েছে অ্যাপটি। কোন অ্যাপ মাত্র তিন মাসে এতো ডাউনলোড হয়নি।

সম্প্রতি ভারত থেকেও টিকটক নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ভারত মনে করে টিকটকসহ অন্যান্য চাইনিজ অ্যাপ তাদের সার্বভৌমত্বের জন্য বড় হুমকি।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর