• শুক্রবার   ১০ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২৫ ১৪২৭

  • || ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪১

১৬১

রাত পোহালেই ভোট, কেন্দ্রে কেন্দ্রে সরঞ্জাম নিয়ে যাচ্ছেন প্রশাসন

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ২০ মার্চ ২০২০  

গাইবান্ধা-৩ (পলাশবাড়ী-সাদুল্লাপুর) উপ-নির্বাচনকে সামনে রেখে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে যাচ্ছে ব্যালট পেপার-বাক্সসহ নির্বাচনী সরঞ্জাম। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যসহ নির্বাচনী কর্মকর্তারাও পৌঁছে যাচ্ছেন কেন্দ্রে। চূড়ান্ত যুদ্ধে অংশ নেয়ার অপেক্ষায় প্রার্থীরা। আর ভোটাররা অপেক্ষা করছেন একটি প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ভোট উৎসবের জন্য।

আগামীকাল শনিবার (২১ মার্চ) সকাল নয়টা থেকে গাইবান্ধা-৩ (পলাশবাড়ী-সাদুল্লাপুর) সংসদীয় আসনের উপ-নির্বাচনে শুরু হবে ভোটগ্রহণ। চলবে একটানা বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত। ভোটগ্রহণের জন্য শনিবার সকাল থেকে পুলিশ প্রহরায় কেন্দ্রে কেন্দ্রে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে নির্বাচনী সরঞ্জাম। পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি ও সেনা সদস্যদের সমন্বয়ে নির্বাচনী এলাকাগুলোতে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গড়ে তোলা হয়েছে।

জেলা নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা গেছে, ‘১৩২টি ভোট কেন্দ্রের জন্য ব্যালট পেপার ও বক্স, সিল, ফরম, প্যাকেটসহ সবধরনের নির্বাচনি সামগ্রী শুক্রবার সকাল থেকে কেন্দ্রগুলোতে পাঠানো শুরু হয়েছে। প্রতিটি কেন্দ্রে একজন করে প্রিজাইডিং অফিসার থাকবেন। প্রিজাইডিং অফিসারের কাছে এসব নির্বাচন সরঞ্জাম বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। প্রিজাইডিং অফিসাররা আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্যের সহায়তায় নির্বাচনি সরঞ্জাম নিয়ে কেন্দ্রে পৌঁছাবেন।’

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মাহাবুবুর রহমান জানান, ‘অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের পরিবেশ ধরে রাখতে সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রগুলোতে। সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোর জন্য বিশেষ নজরদারি রাখা হয়েছে। মাঠে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্য ছাড়াও নির্বাহী ও বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করছেন।’

গত ২৭ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় এমপি ডা. ইউনুস আলী সরকারের। ফলে এ আসনটি শূন্য ঘোষণা করে সংসদ সচিবালয়। নিয়ম অনুযায়ী শূন্য ঘোষণা হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। সে হিসেবে আগামিকাল শনিবার ২১ মার্চ এই আসনে উপ-নির্বাচনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

এ আসনের উপ-নির্বাচনে রয়েছেন ৪ জন বৈধ প্রার্থী। এরমধ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকের প্রার্থী এ্যাড. উম্মে কুলছুম স্মৃতি, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) মনোনীত ধানের শীষ প্রতিকের প্রার্থী অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মইনুল হাসান সাদিক, জাতীয় পার্টি মনোনীত লাঙ্গল প্রতিকের প্রার্থী মইনুর রাব্বী চৌধুরী রোমান এবং জাসদ মনোনীত প্রার্থী এসএম খাদেমুল ইসলাম খুদি। ভোটের মাঠে মোট ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) মনোনীত মশাল প্রতিকের প্রার্থী এসএম খাদেমুল ইসলাম খুদি নৌকার প্রার্থীকে সমর্থন জানিয়ে ভোটের মাঠ থেকে সরে দাড়ানোর ফলে এ আসনের উপ-নির্বাচনে ভোটযুদ্ধে মাঠে রইলেন মুলত: ৩ জন প্রার্থী।

নিরাপত্তা ব্যবস্থার অংশ হিসেবে নির্বাচনী এলাকাগুলোতে শুক্রবার মধ্যরাত থেকে শনিবার মধ্যরাত পর্যন্ত মোটরসাইকেলসহ বেবি টেক্সি, অটোরিক্সা, ইজিবাইক, টেক্সিক্যাব, মাইক্রোবাস, জিপ, পিকআপ, কার, বাস, ট্রাক, টেম্পোসহ সকল ধরনের যান চলাচল বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে। 

সাদুল্লাপুর ও পলাশবাড়ী উপজেলা নিয়ে গঠিত এই আসনে ১৩২টি ভোটকেন্দ্রের ৭৮৬টি ভোটকক্ষে চার লাখ ১১ হাজার ৮৫৪ জন ভোটার আগামীকাল তাদের ভোটারধিকার প্রয়োগ করবার অপেক্ষায় রয়েছেন।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা
গাইবান্ধা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর