• শনিবার   ৩১ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ১৫ ১৪২৭

  • || ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

ব্যাংককে হোটেল থেকে টানা তিন দিন বের হননি সারা-সুশান্ত!

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ২৯ আগস্ট ২০২০  

বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর নানা চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে আসছে। সুশান্তের সঙ্গে কয়েক অভিনেত্রীর সম্পর্কের গুঞ্জন পাওয়া গেছে। এর মধ্যে অন্যতম সাইফ কন্যা সারা আলী খান।

এবার সারা-সুশান্ত নিয়ে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য। তারা নাকি ব্যাংককের একটি হোটেলে টানা তিন দিন কাটিয়েছেন। ওই দিনগুলোতে হোটেল থেকে বের হননি সারা-সুশান্ত।

সম্প্রতি এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁস করেছেন সুশান্তের প্রাক্তন সহযোগী সাবির আহমেদ।

সাবিরের দাবি, ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে ছয় বন্ধু মিলে ব্যাংককে যান সুশান্ত। বন্ধুরা হচ্ছে- কুশাল জাভেরি, সিদ্ধার্থ গুপ্ত, আব্বাস, মুস্তাক, সাবির ও সুশান্ত। 

‘ইন্ডিয়া টুডে’-কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে সাবির বলেন, ওই বয়েজ ট্রিপে সুশান্তের তৎকালীন ‘রিউমারড’ প্রেমিকা সারা আলি খানও যোগ দেন। তাকে নিয়ে মোট সাতজন ব্যাংককের বিলাসবহুল হোটেলে উঠেন।

বৃহস্পতিবার এক সাক্ষাৎকারে রিয়ার মুখে এই ব্যাংকক ভ্রমণের কথা উঠে এসেছিল। রিয়া বলেন, ওই ট্রিপে গিয়ে হাত খুলে খরচ করেন সুশান্ত। প্রয়াত অভিনেতা নিজের খরচে প্রাইভেট জেট ভাড়া করে সেখানে বন্ধুদের নিয়ে যান। বন্ধুদের যাবতীয় খরচও দেন সুশান্ত। সাবিরও প্রাইভেট জেটে ব্যাংককে গিয়ে বিলাসবহুল হোটেলে উঠার কথা জানিয়েছেন। 

সাবির জানান, ভ্রমণের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে সাতজনের মধ্যে পাঁচজন দেশে ফেরেন। সাবির ও সুশান্তের দেহরক্ষী মুস্তাক ব্যাংককে রয়ে গিয়েছিলেন।

সাবির আরো জানান, সুনামির সতর্কতা জারি করার পর সবাই দেশে ফিরে যেতে চেয়েছিল। কিন্তু সবার টিকিট পাওয়া যাচ্ছিল না। সাবির ও মুস্তাক ব্যাংককে থেকে যায়। সুশান্ত ওর এটিএম কার্ড তাদের দিয়ে যায়। টাকা শেষ হয়ে গেলে সুশান্তের বন্ধু স্যামুয়েল মুম্বাই থেকে টাকা পাঠায়।

সাবিরের দাবি, ব্যাংককে পৌঁছার প্রথম দিন সবাই মিলে বেড়িয়েছি। কিন্তু  তাদের রেখে প্রথম তিন দিন হোটেলে নিজেদের বন্দী করে ফেলেন সুশান্ত-সারা। ওই লুকানোর পেছনে সঠিক ব্যাখ্যা দিতে পারেননি সাবির।

এর আগে সারা-সুশান্তের প্রেম নিয়ে মুখ খুলেন স্যামুয়েলও। সুশান্তকে খুব কাছ থেকে দেখা স্যামুয়েল ইনস্টাগ্রামে লিখেছিলেন, 'কেদারনাথ' ছবির সময়ে সারা-সুশান্ত একে অন্যের প্রেম হাবুডুবু খাচ্ছিলেন। সারা শুধু সুশান্ত নয়, সুশান্তের পরিবার, বন্ধু, এমনকি তার স্টাফেদের প্রতিও শ্রদ্ধাশীল ছিল। সারা যখন সম্পর্ক ভেঙে চলে আসে আমি অবাক হয়েছি। বলিউড মাফিয়ারাই সুশান্তের সঙ্গে সারার সম্পর্ক ভাঙতে বাধ্য করেছিল বলে মনে করি।

সুশান্ত কাণ্ডে সাবিরের দেয়া নতুন তথ্য নিঃসন্দেহে রহস্য আরো জটিল করে তুলল।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা