• শুক্রবার   ২৩ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ৭ ১৪২৭

  • || ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

দেশে আরও পাঁচ হাজার শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ৬ সেপ্টেম্বর ২০২০  

দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আরও ৫ হাজার শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন করা হবে। এ ছাড়া মানবসম্পদ উন্নয়নের লক্ষ্যে দেশের ৬৪ জেলাতেই শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবের আদলে লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পের দ্বিতীয় ধাপের রূপরেখা তৈরি করছে তথ্য-প্রযুক্তি বিভাগ।

প্রকল্প বাস্তবায়নে ডিসেম্বরের মধ্যেই প্রয়োজনীয় বরাদ্দ চাওয়া হবে; একইসঙ্গে সংসদ সদস্যদের তালিকার ভিত্তিতে। সম্প্রতি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ২০২০-২১ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) বাস্তবায়ন পর্যালোচনা সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

অনলাইন মাধ্যমে অনুষ্ঠিত বৈঠকে সংযুক্ত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। তার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে আরও যুক্ত ছিলেন আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এনএম জিয়াউল আলম, বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক পার্থ প্রতিম দেব ছাড়াও তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদফতরসহ বিভাগের অধীন বিভিন্ন সংস্থা প্রধান এবং বিভিন্ন প্রকল্প পরিচালকরা।

সভায় আইসিটি বিভাগের চলতি অর্থবছরে গৃহীত প্রকল্পগুলোর বাস্তবায়ন কর্মপরিকল্পনা নিয়ে বিশেষ করে এটুআই প্রোগ্রাম, জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অবকাঠামো উন্নয়ন-ইনফো সরকার-৩ প্রকল্প, মোবাইল গেম অ্যান্ড অ্যাপ্লিকেশনের দক্ষতা উন্নয়ন প্রকল্প, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাই-টেক পার্ক সিলেট ও রাজশাহী প্রকল্প, লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট, উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমি প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্পসহ অন্য সব প্রকল্পের আর্থিক ও বাস্তব অগ্রগতি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়।

সংস্থা প্রধান ও প্রকল্প পরিচালকরা নিজ নিজ প্রকল্পের বাস্তবায়ন পরিকল্পনা ও সর্বশেষ অগ্রগতি সভায় তুলে ধরেন। প্রতিমন্ত্রী কর্মপরিকল্পনা অনুযায়ী গুণগতমান বজায় রেখে প্রকল্পের কাজ যথাসময়ে শেষ করতে প্রকল্প পরিচালকদের প্রয়োজনীয় নির্দেশ প্রদান করেন।

সভায় সংসদ সদস্যদের তালিকার ভিত্তিতে দেশে আরও ৫ হাজার শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপনের বিষয়েও বিস্তারিত আলোচনা হয়। এলাকার জনসংখ্যা ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পূর্ব যোগ্যতা বিবেচনায় নিয়ে এ ল্যাব স্থাপনের নির্দেশনা দেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

এ ছাড়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী ফ্রিল্যান্সারদের আর্থিক ও সামাজিক মর্যাদা নিশ্চিত করতে তাদের পরিচয়পত্র প্রদানের কার্যক্রম আগামী এক মাসের মধ্যে বাস্তবায়নের জন্য কন্ট্রোলার অব সার্টিফাইং অথরিটি (সিসিএ), বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) ও মোবাইল গেমস অ্যান্ড অ্যাপস প্রকল্প কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সমন্বয় করার জন্য প্রকল্প পরিচালক, লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট প্রকল্প ও সংশ্লিষ্ট সবাইকে জোর তাগিদ দেন। প্রকল্প পরিচালকরা প্রকল্পগুলোর কাজ নির্ধারিত সময়ের মধ্যে শেষ করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা