• সোমবার   ১২ এপ্রিল ২০২১ ||

  • চৈত্র ২৯ ১৪২৭

  • || ২৯ শা'বান ১৪৪২

গাইবান্ধায় শিশু অধিকার বিষয়ে জেলা প্রশাসকের সাথে মুখোমুখি সংলাপ

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

গাইবান্ধা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলার শিশু অধিকার পরিস্থিতি বিষয়ে দায়িত্ববাহক কর্মকর্তাদের সাথে শিশুদের সমস্যা বিষয়ক মুখোমুখি সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জাতীয় পর্যায়ে শিশু অধিকার বাস্তবায়নকারী শিশু সংগঠন ন্যাশনাল চিলড্রেন’স টাস্কফোর্স (এনসিটিএফ) গাইবান্ধা জেলা কমিটির আয়োজনে এবং জেলা প্রশাসন গাইবান্ধা ও সেভ দ্য চিলড্রেন বাংলাদেশ এর সহযোগিতায় উক্ত শিশু সংলাপ সম্পন্ন হয়।

এনসিটিএফ গাইবান্ধা জেলা কমিটির সভাপতি কে.এইচ. খান রোহান এর সভাপতিত্বে সংলাপে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শিশুদের সমস্যার কথা শোনেন গাইবান্ধার জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন।

সংলাপে আরো উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপারের প্রতিনিধি জেলা গোয়েন্দা শাখার পরিদর্শক মো. আব্দুর রউফ, জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মৌমিতা গিহ ইভা, মো. ইফতেকার রহমান, জান্নতুল ফেরদৌস উর্মি, জুয়েল মিয়া, সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. রবিউল ইসলাম, বাংলাদেশ শিশু একাডেমি গাইবান্ধা এর লাইব্রেরিয়ান মোছা. রেবেকা পারভীন, সরকারি শিশু পরিবার বালিকা এর সহকারী শিক্ষক চৌধুরী ফরিদা পারভীন, ফ্রেন্ডশীপ এনজিও এর আঞ্চলিক ম্যানেজার আব্দুস সালাম, সেভ দ্য চিলড্রেন এর ফিল্ড অফিসার মো. মোস্তাফিজুর রহমান সৈকত।

সংলাপে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সেভ দ্য চিলড্রেন এর গাইবান্ধা জেলা ভলান্টিয়ার মোঃ তাওহীদ উল ইসলাম তুষার।

সংলাপে শিশুরা ইস্যু ভিত্তিক সমস্যা ও তা সমাধানের জন্য সুপারিশমালা উপস্থাপন করেন। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, সুরক্ষা ও বিনোদন সম্পর্কিত ১৭ টি সমস্যার বিপরীতে ৩৫ টি সুপারিশ করে শিশুরা।

এসময় শিশুরা বলেন, আমরা গত এক বছরে গাইবান্ধা জেলার শিশু সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করে সেখানে বেশ কিছু ভালো দিকের পাশাপাশি কিছু সমস্যাও পেয়েছি। এছাড়াও মুখোমুখি সংলাপকে কেন্দ্র করে জেলার ১৫৬ জন শিশুর মতামতের উপর একটি অনলাইন জরিপ ও তিনটি এফজিডি পরিচালনা করি। যেখানে শিশুরা তাদের মতামত প্রদান করে। তাদের মতামতের আলোকে আজকের সংলাপে সুপারিশমালা উপস্থাপন করা হলো।

শিশুদের সুপারিশমালায় উল্লেখযোগ্য ছিল, জেলায় বাল্য বিবাহ রোধে কিশোর-কিশোরী ও অভিভাবকদের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টিতে কাজ করা। সরকারি টোল ফ্রি নাম্বার ৩৩৩, ৯৯৯ এবং ১০৯ সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের অবহিত কারণে ব্যবস্থা গ্রহণ। স্কুল কলেজ শুরু ও শেষ হবার সময়ে পুলিশি টহলের ব্যবস্থা করা। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য রেম্প সিড়ি স্থাপন করা। শিশু ধর্ষণ, নির্যাতন, হত্যা বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা, সামাজিক সচেতনতা গড়ে তোলা এবং দোষীদের বিচারের আওতায় আনা। শিশু আইন-২০১৩ এর বিধানগুলো প্রতিপালন করা। সড়ক দুর্ঘটনা রোধে অবৈধ ট্রাক্টর ও কাকড়ার দিনের বেলায় চলাচল বন্ধ করা। স্কুল কলেজের সামনে স্পীড ব্রেকার নির্মাণ ও তা রং দিয়ে চিহ্নিত করা। অপ্রাপ্ত বয়স্ক বা শিশুদের নিকট বিড়ি সিগারেট মাদক বিক্রি বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা। শিশুদের মানসিক চাপ কমাতে স্কুল ব্যতীত প্রাইভেট বা কোচিং সেন্টার গুলোকে সরকারি নীতিমালা অনুসরণ করা। স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিধি নিশ্চিত করে শিশুদের পুনরায় বিদ্যালয়ে ফেরার ব্যবস্থা করা। চরাঞ্চলে শিশুদের ও চরবাসীর জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দ্বারা নিয়মিত স্বাস্থ্য সেবা ক্যাম্প পরিচালনা করা ইত্যাদি।

সংলাপে জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন শিশুদের উত্থাপিত সমস্যা ও সুপারিশ গুলো মনোযোগ দিয়ে শোনেন ও তা সমাধানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান।

তিনি বলেন, গাইবান্ধার চর এলাকায় অনেক সমস্যা। স্বাস্থ্য, শিক্ষা, নিরাপত্তা, যাতায়াত ব্যবস্থা সহ সব ক্ষেত্রেই তারা পিছিয়ে রয়েছে। সেই সমস্যা সমাধানে আমরা সরকারের কাছে চর উন্নয়ন বোর্ড গঠনের প্রস্তাব দিয়েছি। এ বিষয়ে কাজ চলছে। এছাড়াও বেসরকারি এনজিও প্রতিষ্ঠানগুলোও সেখানে কাজ করছে।

হাসপাতালে শিশু স্বাস্থ্য সেবার বিষয়ে তিনি বলেন, টিকেট কাউন্টারে শিশুদের অগ্রাধিকার দিতে ব্যবস্থা নেয়া হবে। কারন শিশুবান্ধব সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে এটা লাগবে।

বাল্যবিয়ে প্রতিরোধের ক্ষেত্রে তিনি বলেন, গাইবান্ধায় বাল্যবিয়ের হার অনেক বেশি। চরাঞ্চলে এই হার সর্বাধিক। প্রায় ৮০ শতাংশ বাল্যবিয়ে হয় চর গুলোতে। শুধু আইনের প্রয়োগেই নয় এজন্য জনগনকে সচেতন হতে হবে।

এছাড়াও জেলা প্রশাসক বলেন, শিশুদের বিনোদনের জন্য গাইবান্ধায় কোনো পার্ক বা নিরিবিলি পরিবেশ নেই। তবে ঘাঘট লেকে কাজ চলছে। এছাড়াও ঘাঘট নদের পাড়ে মুজিব শতবর্ষ স্মৃতি শিশু পার্ক নাম শিশুদের জন্য আলাদা পার্ক স্থাপনের কাজ চলছে।

জেলা প্রশাসক এনসিটিএফ এর কাজে সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, পড়ালেখা ঠিক রেখে স্বেচ্ছাসেবামুলক কাজ করতে হবে। তিনি শিশু অধিকার বাস্তবায়নে এনসিটিএফ এর কাজে সহযোগিতা করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

মুখোমুখি সংলাপে এনসিটিএফ জেলা কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যসহ ২৫ জন শিশু প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেন।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা