সোমবার   ১৮ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৩ ১৪২৬   ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

২৬

গাইবান্ধায় বাঁধনের ২২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

প্রকাশিত: ৭ নভেম্বর ২০১৯  

 

স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের সংগঠন বাঁধনের ২২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গাইবান্ধা সরকারি কলেজ ইউনিটের আয়োজনে একটি র‌্যালী কলেজ চত্ত¡র প্রদক্ষিণ করে। দ্বাবিংশ বর্ষ শেষে প্রতিজ্ঞা হোক, রক্তদানে দূর হবে মৃত্যুর শোক- এই প্রতিপাদ্যে স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের সংগঠন বাঁধনের ২২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গাইবান্ধায় বৃহস্পতিবার সকালে র‌্যালী, আলোচনা সভা, কেক কাটা ও বিনামূল্যে রক্তের নির্ণয় কর্মসূচি পালিত হয়েছে। বাঁধন গাইবান্ধা সরকারি কলেজ ইউনিটের আয়োজনে এসব কর্মসূচি পালন করা হয়।


প্রথমে গাইবান্ধা সরকারি কলেজের প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে একটি র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি কলেজ চত্ত¡র প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালীতে শিক্ষক ও বাঁধনের সদস্যসহ সাধারণ শিক্ষার্থীরা রক্তদান সম্পর্কে সচেতনতামূলক বিভিন্ন শ্লোগাণ উচ্চারণ করেন। পরে কলেজ চত্ত¡রে অবস্থিত বাঁধন কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন বাঁধন গাইবান্ধা সরকারি কলেজ ইউনিটের সভাপতি মো. মিল্লাত হোসাইন। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. মিজানুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কলেজের শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এস এম আসাদুল ইসলাম, ইংরেজী বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মো. আব্দুর রশিদ সরকার, বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আনোয়ার হোসেন, সহকারী অধ্যাপক বাবুল আকতার, হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. সোহেল রানা, ইসলামের ইতিহাস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. মাসুদুর রহমান, বাঁধনের তত্ত¡াবধায়ক শিক্ষক বাংলা বিভাগের প্রভাষক মো. হাসান কবীর ও জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. আসিফ সরকার।
অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন প্রথম আলোর গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি শাহাবুল শাহীন তোতা, বাঁধন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জহুরুল হক হলের সাবেক সভাপতি মো. আবেদ আলী ও বাঁধন বগুড়া জোনাল পরিষদের সদস্য সচিব এস এম ওবায়দুল ইসলাম প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বাঁধন গাইবান্ধা সরকারি কলেজ ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক মো. শাহাদৎ হোসেন। আলোচনা সভায় কলেজ প্রশাসন ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ সর্বদা বাঁধনের পাশে থেকে সবধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন।
এরপর এক আনন্দঘন পরিবেশে অতিথিদের নিয়ে কেক কাটেন বাঁধনের সদস্যরা। শেষে ৫৩জন শিক্ষার্থী ও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে বিনামূল্যে রক্তের গ্রæপ নির্ণয় করে দেওয়া হয়।
অসুস্থ মানুষের রক্তের চাহিদাপূরণে একের রক্ত অন্যের জীবন, রক্তই হোক আত্মার বাঁধন শ্লোগাণে ১৯৯৭ সালের ২৪ অক্টোবর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদুল্লাহ হল থেকে বাঁধন নামের সংগঠনটির যাত্রা শুরু হয়। এরপর ছড়িয়ে পড়ে সারাদেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে। বর্তমানে ৫২টি জেলার ৭৩ টি কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে সংগঠনটি। সারাদেশে বাঁধন পরিবার, ইউনিট ও কেন্দ্রীয় পরিষদ থেকেও বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর নানান অনুষ্ঠান পালন করা হয়।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা
এই বিভাগের আরো খবর