• বৃহস্পতিবার   ২৬ নভেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১১ ১৪২৭

  • || ১০ রবিউস সানি ১৪৪২

খাবারের স্বাদ-মান ঠিক রাখতে যেভাবে রান্না করবেন

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ৩০ অক্টোবর ২০২০  

আমরা প্রায় নিয়ম করেই তিনবেলা খাবার খেয়ে থাকি। বিশেষ করে রান্না করা খাবার। শরীর সুস্থ রাখতে খাবারের বিকল্প আর কিছুই নেই। তবে কিছু ভুল পদ্ধতিতে রান্না করার ফলে খাবারের পুষ্টিগুণ কমে যায়। এমনকি অনেক সময় স্বাদও পরিবর্তন হয়ে যায়। 

এতে করে যেমন খাবারের পুষ্টিমাণ নষ্ট হচ্ছে তেমনি স্বাস্থ্যের জন্যও ক্ষতিকর। তাই সঠিক পদ্ধতিতে খাবার রান্না করুন। জেনে নিন কোন খাবার কীভাবে রান্না করবেন। এছাড়া খাবার রান্না করার সময় কি কি বিষয় খেয়াল রাখবেন-

> রান্নার সময় ঢাকনা দিয়ে রান্না করুন। এতে যেমন তাড়াতাড়ি রান্না হবে তেমন পুষ্টিগুণও বজায় থাকবে। কেননা অক্সিজেন খাদ্যের সংস্পর্শে আসার ফলে ভিটামিন বেশি নষ্ট হয়।

> মাইক্রোওয়েভ ওভেন বা প্রেশার কুকারে রান্না করলে তুলনামূলকভাবে বেশি পুষ্টি উপাদান বজায় থাকে। কেননা এতে ঢাকনা ব্যবহার করা হয় ও দ্রুত আঁচে রান্না হয়। পরিমাণ মত পানি দিয়ে ভাত রান্না করুন। যেন ভাতের পুষ্টিকর মাড় ফেলে দিতে না হয়।

> সবজি কাটার আগে ধুয়ে নিন। অনেকে শাকসবজি কেটে তারপর ধুয়ে নেন। এতে করে সবজির পুষ্টিগুণ অনেকটাই পানির সঙ্গে চলে যায়। তাই পুষ্টিমান ঠিক রাখতে আগে সবজি বা ফল কাটার আগে ভালোভাবে ধুয়ে নিন। 

> সবজি একেবারে ছোট ছোট করে না কেটে কিছুটা বড় টুকরো করে কাটুন। টুকরো গুলো একই সাইজে রাখার চেষ্টা করুন। তাতে সিদ্ধ হতে একই সময় লাগবে আর পুষ্টিমানও ভালো থাকবে। সবজি কাটার সময় খেয়াল রাখুন যতটা সম্ভব খোসা সহ কাটতে। কারণ খোসার নিচেই বেশিরভাগ পুষ্টিমান থাকে।   

> নরম সবজি যেমন-ব্রোকলি, ফুলকপি, গাজর ও শতমূলী সিদ্ধ করার চেয়ে ভাপে রান্না করলে এর স্বাদ বাড়ে। আবার মাছও ভাপে রান্না করলে এর গুণ ঠিক থাকে ও সুস্বাদু হয়। আমাদের সবচেয়ে প্রিয় মাছ, ইলিশ আর চিংড়িই তো ভাপিয়ে খেতে পছন্দ করি! ভেটকির পাতুরি যদি ছাঁকা তেলে না ভেজে ভাপিয়ে নিতে পারেন। এতে মাছের আঁশটে গন্ধও দূর হবে। সেই সঙ্গে পুষ্টিও বজায় থাকবে।  

> মাংস রান্নার ভালো পদ্ধতি হচ্ছে সব মশলা মিশিয়ে একবারে চুলায় বসিয়ে রান্না করা। মাংস, সবজি ও অন্যান্য উপাদান ৪০-৬০ মিনিট রান্না করতে পারেন। গ্রিল করলে মাংস থেকে স্যাচুরেটেড ফ্যাট কমে যায়। খেয়াল রাখুন যে রান্না পদ্ধতি আপনি ব্যবহার করছেন, তা যেন হয় সর্বোচ্চ পুষ্টিসমৃদ্ধ ও স্বাস্থ্যের উপযোগী। 

> একই পদ্ধতিতে ম্যারিনেট করে নিন প্রথমে, তার পর ভাপানোর বদলে আভেনে বা নন-স্টিক ফ্রাই প্যানে খাবারটি গ্রিল করে নিন। খাদ্যবস্তু নিজের আর্দ্রতাতেই সিদ্ধ হবে, একান্ত প্রয়োজন পড়লে সামান্য ফ্যাট যোগ করতে পারেন গ্রিল করার সময়ে।

> উচ্চতাপ বা চড়া আঁচে খাবার তৈরি করলে এর পুষ্টিগুণ কমে যায়। তবে শাক, টমেটো হাইফেমে সিদ্ধ করে পানি ঝরিয়ে ফেললে পুষ্টি, রঙ ও বুনন ঠিক থাকে। 

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা