• রোববার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ৫ ১৪২৭

  • || ০২ সফর ১৪৪২

৭৯

এবার বর্ষায় জলজট ভেঙে গতি পাবে রাজধানীর ২৪ খাল

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ৩১ মে ২০২০  

বর্ষা শুনতেই কপালে ভাঁজ পড়ে রাজধানীবাসীর। কারণ বৃষ্টিতে রাজধানীর সড়ক জলমগ্ন হয়ে পড়ার পয়ঃনিষ্কাশন খালের পানিতে একাকার হয়ে যায় রাজধানীর অনেক এলাকা। নোংরা পানি ঢুকে যায় বাসা-বাড়িতে। ভোগান্তি পোহাতে হয় নগরবাসীকে। তবে এবার বর্ষায় জলজট ভেঙে গতি পাবে রাজধানীর ২৪টি খাল। 

আসন্ন বর্ষার আগেই রাজধানীর ২৬টি খালের মধ্যে ২৪টির খননকাজ কাজ শেষ করতে চলেছে ঢাকা ওয়াসা কর্তৃপক্ষ। এই কার্যক্রম পুরোপুরি শেষ হলে পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থায় গতি ফিরবে। এছাড়া খালগুলোতে অবাধ পানি চলাচলের পাশাপাশি পানির ধারণ ক্ষমতাও বাড়বে। আর জলজট হলেও তা স্থায়ী হবে না।

গত মার্চ মাসে এই ২৪টি খাল খনন ও পরিচ্ছন্নতার কার্যক্রম শুরু করে ঢাকা ওয়াসা। বর্ষার আগেই তথা জুন মাসের মাঝামাঝি সময়ে সবগুলো খালের খনন কাজ ও পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম শেষ করার লক্ষ্য রয়েছে।

ঢাকা ওয়াসার প্রকৌশল বিভাগের পরিচালক শহিদুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, এবার বর্ষায় রাজধানীবাসীকে জলজটের ভোগান্তি তেমন পোহাতে হবে না। তিনি জানান, রাজধানীর খালগুলোর রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব ওয়াসার হওয়ায় ২৬টি খালের মধ্যে ২৪টি খালের ময়লা পরিষ্কার এবং খালগুলো খননের কাজ গত মার্চ মাসে হাতে নেয়া হয়েছে। আগামী জুনের মাঝামাঝি সময়ে এই কাজ শেষ হবে।

শহিদুল ইসলাম বলেন, খালগুলো থেকে অবর্জনা তোলা শেষ হলে পানির ধারণক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে। স্বাভাবিক বৃষ্টিপাতে খালের পাশে রাস্তায় বা আশাপাশের বাড়িতে ঢুকবে না। মাত্রাতিরিক্ত বৃষ্টি হলেও পানি অল্প সময়ের মধ্যেই নেমে যাবে। সাধারণত বাথরুমের ফ্লোরেও যখন মাত্রাতিরিক্ত পানি ঢালা হয় তখন সেখানেও পানি জমে। আবার কিছুক্ষণ পর নেমে যাবে। কারণ পাইপের একটা মাপ আছে। খালের অবস্থাও ঠিক তাই। যখন অতিরিক্ত বৃষ্টিপাত হবে, তখন সে পানি নামতে কিছুটা সময় লাগবে। কিন্তু পানি জমে থাকবে না।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা