• শুক্রবার   ২৭ নভেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৩ ১৪২৭

  • || ১১ রবিউস সানি ১৪৪২

একনেক সভা: গাইবান্ধায় উঠছে ৭৯৮ কোটি ৫৩ লাখ টাকার ৫ প্রকল্প

দৈনিক গাইবান্ধা

প্রকাশিত: ১৬ নভেম্বর ২০২০  

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় ৫ প্রকল্প অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হবে। প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৮ হাজার ৫৮১ কোটি টাকা। সভায় সভাপতিত্ব করবেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা।

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে গণভবন থেকে এনইসি সম্মেলন কক্ষের সঙ্গে থাকবেন প্রধানমন্ত্রী। একনেক কার্যপত্র থেকে এ তথ্য জানা গেছে। কৃষি-অকৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি, নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টিসহ সার্বিক দারিদ্র্য বিমোচনে প্রকল্পটি ইতিবাচক অবদান রাখবে।

একনেকে উপস্থাপিত অন্য প্রকল্পগুলো হলো ‘যমুনা নদীর ডান তীরের ভাঙন হতে গাইবান্ধা জেলার ফুলছড়ি উপজেলাধীন কাতলামারী ও সাঘাটা উপজেলাধীন গোবিন্দি এবং হলদিয়া এলাকা রক্ষা’ প্রকল্প। পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন প্রকল্পটি একনেকে অনুমোদনের পর চলতি বছরের জুলাই থেকে জুন ২০২৩ সালে বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড। প্রকল্পটির জন্য মোট ব্যয় হবে ৭৯৮ কোটি ৫৩ লাখ টাকা।

‘গুরুত্বপূর্ণ পল্লী অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প : বরিশাল, ঝালকাঠি ও পিরোজপুর জেলা (১ম সংশোধিত)’ প্রকল্প। স্থানীয় সরকার বিভাগ/স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবে প্রকল্পটি অনুমোদনের পর বাস্তবায়ন করবে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি)। ১ হাজার ২৫৫ কোটি টাকা ব্যয়ে নভেম্বর ২০১৭ থেকে জুন ২০২৩ সালে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে।

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবে ‘খুলনা সিটি কর্পোরেশনের বর্জ্য ব্যবস্থার উন্নয়ন’ প্রকল্পটিও একনেকে অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হবে। প্রকল্পটি ৩৯৩ কোটি টাকা ব্যয়ে চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর ২০২৩ সালে বাস্তবায়ন করবে খুলনা সিটি কর্পোরেশন (কেসিসি)। এ প্রকল্পটিতে কেসিসি ৭৮ কোটি ৬৮ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে। এছাড়া ‘শেখ হাসিনা সাংস্কৃতিক পল্লী নির্মাণ’ প্রকল্পটি প্রথম সংশোধনের জন্য একনেক সভায় উপস্থাপন করা হবে। এ প্রকল্পটিও স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় বাস্তবায়ন করবে। সংশোনী প্রস্তাব অনুমোদন পেলে মার্চ ২০১৬ থেকে জুন ২০২২ মেয়াদে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে।

সংশোধনীতে প্রকল্পটির ব্যয় বেড়েছে ১০৩ কোটি টাকা। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর।

দৈনিক গাইবান্ধা
দৈনিক গাইবান্ধা